default-image

ভারতে ধর্মীয় সহিষ্ণুতার সাম্প্রতিক পরিস্থিতি নিয়ে মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার মন্তব্যের জবাব দিল দেশটির সরকার। কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী অরুণ জেটলি বলেছেন, দালাই লামার বারাক ওবামার পাশে বসাটাই ভারতে ধর্মীয় সহিষ্ণুতার সেরা উদাহরণ।
মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা গত বৃহস্পতিবার রাজধানী ওয়াশিংটন ডিসিতে আয়োজিত বার্ষিক ‘ন্যাশনাল প্রেয়ার ব্রেকফাস্ট’ অনুষ্ঠানে বলেন, ভারতের সাম্প্রতিক ধর্মীয় ‘অসহিষ্ণুতার’ ঘটনাগুলো দেখলে দেশটির স্বাধীনতা আন্দোলনের নেতা মহাত্মা গান্ধী আঘাত পেতেন।
ওয়াশিংটনের ওই অনুষ্ঠানে বিশ্বের বিভিন্ন দেশ থেকে কয়েক হাজার ধর্মীয় ব্যক্তিত্ব অংশ নেন। গত মাসে ভারত সফর করা ওবামা এখানে বলেন, ‘দেশটি অবিশ্বাস্য, সুন্দর এবং অসামান্য বৈচিত্র্যে ভরপুর। কিন্তু সেখানে গত কয়েক বছরে সব ধর্মীয় সম্প্রদায়ই কখনো কখনো ভিন্ন ধর্মে বিশ্বাসী মানুষের আক্রমণের শিকার হয়েছে।...এগুলো অসহিষ্ণু কার্যকলাপ, যা ভারতের স্বাধীনতায় অবদান রাখা গান্ধীজিকে আহত করত।’
ওবামার বক্তব্যের জবাবে অরুণ জেটলি গতকাল শনিবার বলেন, ভারতের ধর্মীয় সহিষ্ণুতার বিশাল ইতিহাস রয়েছে। এর কোনো বিচ্ছিন্ন বিচ্যুতিতে এ ইতিহাস পাল্টে যাবে না।
প্রার্থনা অনুষ্ঠানে তিব্বতের আধ্যাত্মিক নেতা দালাই লামা ওবামার কাছাকাছি একটি টেবিলে বসেছিলেন। ওবামা তাঁর সঙ্গে শুভেচ্ছা বিনিময় করলেও সরাসরি কথা বলেননি। দৃশ্যত চীনের সম্ভাব্য প্রতিক্রিয়া এর পেছনে কাজ করেছে। দালাই লামা ‘ধর্মীয় ছদ্মবেশের’ আড়ালে চীনবিরোধী বিচ্ছিন্নতাবাদী কর্মকাণ্ডে লিপ্ত বলে চীন অভিযোগ করে থাকে।
পঞ্চাশের দশকে স্বশাসিত এলাকা তিব্বতে চীন সামরিক অভিযান চালালে দালাই লামা সীমান্ত পেরিয়ে ভারতে আশ্রয় নেন। তখন থেকে তিনি উত্তর ভারতের ধর্মশালা শহরে থাকেন।
বিজেপি গত বছর ভারতের ক্ষমতায় আসার পর থেকে দেশটিতে তাদের কট্টর হিন্দুত্ববাদী মিত্রদের নানা বিতর্কিত কার্যকলাপে দেশে-বিদেশে উদ্বেগের সৃষ্টি হয়েছে। এর মধ্যে রয়েছে জোর করে বা প্রলোভনের মাধ্যমে ধর্মান্তর ও গির্জায় একের পর এক হামলার মতো ঘটনা।

বিজ্ঞাপন
যুক্তরাষ্ট্র থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন