বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

মার্কিন নৌবাহিনী বলছে, পারমাণবিক শক্তিচালিত সাবমেরিনটির কর্মকর্তাদের দুর্ঘটনাটি এড়ানোর সুযোগ ছিল।

গত ২ অক্টোবর সাগরের তলদেশে থাকা একটি পর্বতের সঙ্গে ধাক্কা খায় ইউএসএস কানেকটিকাট নামের পারমাণবিক শক্তিচালিত সাবমেরিনটি। এতে সাবমেরিনটি ক্ষতিগ্রস্ত হয়। তবে সাবমেরিনটির পারমাণবিক চুল্লি অক্ষত ছিল। এই দুর্ঘটনায় সাবমেরিনের ১১ জন নাবিক আহত হন।

সাবমেরিনটির বরখাস্ত তিন কর্মকর্তা হলেন—কমান্ডিং অফিসার, নির্বাহী কর্মকর্তা ও শীর্ষস্থানীয় এক নাবিক।

কমান্ডিং অফিসার ক্যামেরন আলজিলানির স্থলে এক কর্মকর্তাকে অন্তর্বর্তীকালীন কমান্ডার করা হয়েছে।

মার্কিন নৌবাহিনীর পশ্চিম প্রশান্ত মহাসাগরভিত্তিক সপ্তম বহরের এক বিবৃতিতে বলা হয়, সঠিক বিচারবুদ্ধি, বিচক্ষণতার সঙ্গে সিদ্ধান্ত গ্রহণ, নেভিগেশনের প্রয়োজনীয় পদ্ধতি মেনে চলা, দলগত প্রচেষ্টা ও ঝুঁকি ব্যবস্থাপনা দুর্ঘটনাটি এড়াতে পারত।

দুর্ঘটনার পর সাবমেরিনটি প্রশান্ত মহাসাগরে যুক্তরাষ্ট্রের গুয়াম দ্বীপ নেওয়া হয়। সেখানে ক্ষয়ক্ষতি পরিমাপ করা হচ্ছে। এরপর সাবমেরিনটি মেরামতের জন্য ওয়াশিংটনের ব্রেমারটন সাবমেরিন ঘাঁটিতে নেওয়া হবে।

দক্ষিণ চীন সাগরের ছোট দ্বীপগুলোসহ বিভিন্ন অংশের মালিকানা দাবি করে আসছে চীন। দেশটির এমন দাবি চ্যালেঞ্জ করে অঞ্চলটিতে নিয়মিত মহড়া চালিয়ে আসছে মার্কিন নৌবাহিনী।

যুক্তরাষ্ট্র থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন