এমটিএ জানিয়েছে, নতুন মডেলের ট্রেন জাপানের কাওয়াসাকি কোম্পানি যুক্তরাষ্ট্রের নেব্রাস্কায় তৈরি করেছে। আগের ব্যবহৃত ট্রেনগুলো ছিল আর ৪৬ মডেলের। আগামী বছরের মধ্যে এমটিএ নতুন মডেলের ট্রেন চালু করার কথা জানিয়েছে।

এমটিএ আরও জানিয়েছে, নতুন ট্রেনের সিগন্যাল পদ্ধতি সর্বাধুনিক প্রযুক্তির। ফলে নগরের ট্রেন সার্ভিস আরও গতিময় হয়ে উঠবে।

এমটিএর নির্বাহী জ্যানো লাইয়েবার জানিয়েছেন, নতুন ট্রেনে যাত্রী ধারণ ক্ষমতা বেশি থাকবে। অধিক যাত্রী পরিবহন সামাল দেওয়ার সব আয়োজন থাকছে নতুন এসব ট্রেনে।

নিউইয়র্কের ট্রেনের চিরচেনা ধূসর রঙেরও পরিবর্তন ঘটছে। নতুন ডিজাইনের ট্রেনের সামনের দিক নীল থাকছে। নীল আর হলুদ রং নিয়ে ভেতরের আসন সংলগ্ন এলাকার ডিজাইনকে চমৎকার বলে উল্লেখ করেছেন এমটিএ কর্মকর্তারা। প্রশস্ত ওঠানামার দরজা থাকায় যাত্রীরা দ্রুত ওঠানামা করতে পারবেন। প্রতিটি বগিতে আধুনিক ডিজিটাল ডিসপ্লে থাকবে, থাকবে মোবাইল চার্জের ব্যবস্থাও।

বিশ্বের বড় বড় নগরী থেকে নিউইয়র্ক নগরর ট্রেন সার্ভিস অনেক বেশি কোলাহলের। নগরের যানজট এড়াতে অধিকাংশ স্থানীয় লোকজন নগরের ট্রেন সার্ভিসেই যাতায়াত করতে পছন্দ করেন। প্রায় অর্ধ শতাব্দী থেকে পুরোনো ট্রেন দিয়ে চলছে বিশ্বের অন্যতম বৃহৎ ট্রেন সার্ভিস, নগরের সাবওয়ে। ৬৫৬ মাইল দীর্ঘ নিউইয়র্ক নগরের ট্রেন লাইনের ৪৪৩ মাইল আন্ডারগ্রাউন্ড। নদী এবং জনপদের নিচ দিয়ে ২৪ ঘণ্টা চলমান এ ট্রেন সার্ভিসকে বিশ্বের অন্যতম বৃহৎ ট্রেন সার্ভিস বলা হয়ে থাকে।