default-image

মার্কিন নির্বাচনের আর কয়েকটা দিন বাকি। এর মধ্যেই যুক্তরাষ্ট্রে দৈনিক করোনা সংক্রমণের রেকর্ড হয়েছে। গত বৃহস্পতিবার যুক্তরাষ্ট্রে একদিনে সর্বোচ্চ ৯১ হাজার করোনা সংক্রমিত রোগী শনাক্ত হয়েছেন। এক ডজনের বেশি অঙ্গরাজ্যে করোনার সংক্রমণ বাড়তে দেখা গেছে। বিবিসির এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে। একই দিনে করোনাভাইরাসে দেশটিতে এক হাজারের বেশি মানুষ মারা গেছেন। দেশটিতে হাসপাতালে ভর্তি রোগী ও মৃতের সংখ্যা উর্ব্ধমুখী।

জনস হপকিন্স বিশ্ববিদ্যালয়ের তথ্য অনুযায়ী, যুক্তরাষ্ট্রে মোট করোনা সংক্রমণ শনাক্তের সংখ্যা ৯০ লাখ পেরিয়ে গেছে।

মঙ্গলবার নির্বাচনে মুখোমুখি হচ্ছেন ডোনাল্ড ট্রাম্প ও জো বাইডেন।

বিজ্ঞাপন

বার্তা সংস্থা রয়টার্সের তথ্য অনুযায়ী, অক্টোবর মাসে এ নিয়ে তৃতীয়বারের মতো যুক্তরাষ্ট্রে দৈনিক মৃত্যুর সংখ্যা এক হাজার ছাড়াল।

যুক্তরাষ্ট্রের ২১টি অঙ্গরাজ্যে করোনার সংক্রমণ বাড়তে দেখা গেছে। এর মধ্যে কয়েকটি অঙ্গরাজ্যের পরিস্থিতি ভয়াবহ। এ অঙ্গরাজ্যগুলো মার্কিন নির্বাচনে গুরুত্বপূর্ণ হিসেবে বিবেচনা করা হচ্ছে।

উইসকনসিনে ট্রাম্পের নির্বাচনী শোভাযাত্রা ঘিরে করোনা সংক্রমণ আরও বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা করছেন দেশটির হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প অবশ্য এ নিয়ে চিন্তিত নন। নির্বাচনী শোভাযাত্রার আগে শুক্রবার তিনি টুইট করে বলেছেন, ‘পরীক্ষা বেশি তাই করোনা সংক্রমণ শনাক্ত বেশি। আমরা পরীক্ষার ক্ষেত্রে সেরা। মৃত্যুর সংখ্যা কমছে।’

ট্রাম্পের নির্বাচনী শোভাযাত্রায় অংশগ্রহণকারীদের পরীক্ষা করার পাশাপাশি মাস্ক দেওয়া হচ্ছে। তবে এসব শোভাযাত্রার সামাজিক দূরত্ব মানা হচ্ছে না। অনেক সমর্থক মাস্ক পরছেন না।

ডোনাল্ড ট্রাম্পের মতোই নির্বাচনী প্রচার চালিয়ে যাচ্ছেন জো বাইডেন। তিনি অবশ্য সামাজিক দূরত্ব মানার চেষ্টা করছেন।

বিশ্বজুড়ে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ছড়ানোর ১০ মাস পূর্ণ হতে চলেছে। এখন পর্যন্ত এই মহামারি নিয়ন্ত্রণে আসার কোনো লক্ষণ নেই। বরং দিনে দিনে সংক্রমিত রোগীর সংখ্যা ও মৃত্যু বাড়ছে।

বৃহস্পতিবার বিশ্বজুড়ে এক দিনে প্রায় সাড়ে পাঁচ লাখ করোনায় সংক্রমিত রোগী শনাক্ত হয়েছেন। এক দিনে শনাক্ত হওয়া রোগীর সংখ্যার দিক থেকে এটিই এখন পর্যন্ত সর্বোচ্চ রেকর্ড। এর আগের দিন বুধবার শনাক্ত হয় পাঁচ লাখের বেশি রোগী। করোনা মহামারি ছড়ানোর পর এদিনই প্রথম এক দিনে শনাক্ত রোগীর সংখ্যা পাঁচ লাখ ছাড়ায়। বার্তা সংস্থা রয়টার্স এ তথ্য জানিয়েছে।

বিজ্ঞাপন

চীন থেকে গত জানুয়ারিতে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ বিশ্বজুড়ে ছড়িয়ে পড়ে। শুরুর দিকে এই মহামারি আঘাত হানে ইউরোপে। এরপর তা আমেরিকা হয়ে এশিয়ায়, বিশেষ করে দক্ষিণ এশিয়ায় ছড়ায়। ইউরোপের দেশগুলোয় করোনার প্রথম ঢেউয়ের পর এখন দ্বিতীয় ঢেউ এসেছে। এর পরিপ্রেক্ষিতে নেদারল্যান্ডস, ইতালি, স্পেন, ফ্রান্স, জার্মানি, যুক্তরাজ্যসহ বিভিন্ন দেশ পদক্ষেপ নিতে শুরু করেছে।

যুক্তরাষ্ট্রের জনস হপকিনস ইউনিভার্সিটির তথ্য অনুযায়ী, বিশ্বে আজ শনিবার সকালে করোনায় সংক্রমিত শনাক্ত রোগীর সংখ্যা ৪ কোটি ৫৪ লাখ ৭৭ হাজার ৫৫২।

জনস হপকিনস ইউনিভার্সিটির তথ্য অনুযায়ী, একই সময় বিশ্বে করোনায় মোট মারা গেছেন ১১ লাখ ৮৭ হাজার ২৩ জন।

মন্তব্য পড়ুন 0