বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

বার্তা সংস্থা রয়টার্সের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ইসরায়েলকে বিশাল পরিমাণ সামরিক সহায়তা দেওয়ার প্রশ্নে তোলা বিলের ওপর বৃহস্পতিবার প্রতিনিধি পরিষদে ভোটাভুটি হয়। এর পক্ষে ৪২০ জন আর বিপক্ষে ৯ জন আইনপ্রণেতা ভোট দেন।

বিপক্ষে ভোট দেওয়া আইনপ্রণেতাদের মধ্যে আটজন ডেমোক্র্যাট ও একজন রিপাবলিকান। এখন বিলটি কংগ্রেসের উচ্চকক্ষ সিনেটে যাবে। সেখানে ভোটাভুটির তারিখ এখনো নির্ধারণ করা হয়নি। তবে বিলটি সেখানেও পাস হবে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

তবে শুরু থেকেই কয়েকজন ডেমোক্রেটিক নেতা এই বিলের বিরোধিতা করে আসছিলেন। তাঁদের দাবি, ইসরায়েল ফিলিস্তিনিদের বিরুদ্ধে মানবাধিকার লঙ্ঘন করেছে। ফলে তাদের সামরিক সহায়তা দেওয়া মানে মানবাধিকার লঙ্ঘনের বিষয়টিকে সমর্থন করা। প্রতিনিধি পরিষদে বিলটি নিয়ে বিতর্কের সময় উদারপন্থী হিসেবে পরিচিত ডেমোক্র্যাট আইনপ্রণেতা রাশিদা তালিব বলেন, ‘ইসরায়েলের হামলা থেকে ফিলিস্তিনিদের রক্ষার বিষয়টিও আমাদের ভাবা উচিত, কথা বলা উচিত।’

তবে উদারপন্থী ডেমোক্র্যাটদের এমন মন্তব্যে ক্ষুব্ধ হন ডেমোক্রেটিক পার্টির মধ্যপন্থীরা। ক্ষুব্ধ হন বিরোধী দল রিপাবলিকান পার্টির শীর্ষ নেতারাও। উদারপন্থীদের এই দাবিকে তাঁরা ইসরায়েলবিরোধী বলে দাবি করেন। তবে শেষ পর্যন্ত উদারপন্থীদের ওই বিরোধিতা ধোপে টিকল না।

মার্কিন প্রতিনিধি পরিষদে বিলটি পাস হওয়ার পর এক বিবৃতিতে ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী নাফতালি বেনেত ডেমোক্র্যাট ও রিপাবলিকান—উভয় দলের নেতাদের ধন্যবাদ জানিয়েছেন। বিলটির বিরোধিতাকারীদের উদ্দেশে তিনি বলেছেন, ‘এই সহায়তাকে যাঁরা চ্যালেঞ্জ জানানোর চেষ্টা করছিলেন, তাঁরা আজ সেই জবাব পেয়েছেন।’

যুক্তরাষ্ট্র থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন