যুক্তরাষ্ট্রের নির্বাচন পরিস্থিতি যেদিকে যাচ্ছে, তাতে রাশিয়ার প্রত্যাশা ক্রমশ কমে আসছে। বিবিসির খবরে জানা যায়, দেশটির মস্কোভস্কি কমসোমোলেতস ট্যাবলয়েড পত্রিকায় স্থানীয় সময় আজ শুক্রবারের খবরে বলা হয়েছে, ট্রাম্প বা বাইডেন যেকোনো একজনকে বেছে নেওয়া রাশিয়ার কাছে দুই ধরনের ক্যাস্টর অয়েলের মধ্যে একটিকে বেছে নেওয়ার মতো।
তবে রাশিয়ার সরকারি গণমাধ্যমসহ বিভিন্ন গণমাধ্যম জো বাইডেনকে নিয়ে সুর অনেকটাই বদলেছে।

বিবিসির মস্কো প্রতিনিধি স্টিভ রোজেনবার্গের এক বিশ্লেষণে বলা হয়, রুশ সরকারের জন্য ট্রাম্প সরকার বেশি উপকারী। মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প কখনোই রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের সমালোচনা করেননি। তিনি মস্কোর সঙ্গে ঘনিষ্ঠ যোগাযোগ বজায় রাখতে আহ্বান জানিয়েছেন। অন্যদিকে ডেমোক্রেকিট পার্টির প্রার্থী জো বাইডেন ক্রেমলিনের নেতা পুতিনের অনেক সমালোচনা করেন। রাশিয়া সরকারের কাছে বাইডেন প্রেসিডেন্ট হওয়া মানে বেশি বাধার সম্মুখীন হওয়া।
রুশ সরকারি গণমাধ্যম জো বাইডেনের চেয়ে ট্রাম্পেরই বেশি প্রশংসা করে।

বিজ্ঞাপন
লিংক https://twitter.com/BBCSteveR/status/1324600597518159872?ref_src=twsrc%5Etfw%7Ctwcamp%5Etweetembed%7Ctwterm%5E1324600597518159872%7Ctwgr%5Eshare_3&ref_url=https%3A%2F%2Fwww.bbc.co.uk%2Fnews%2Flive%2Felection-us-2020-54786937

রুশ সরকারি পত্রিকার আজ শুক্রবারের সংস্করণের খবরে ডেমোক্র্যাটদের পক্ষে কিছুটা নরম সুর দেখা গেছে। সেখানে বলা হয়, কোনো বদল হতে চলেছে? ওই পত্রিকার খবরে আরও বলা হয়, ট্রাম্পের আক্রমণের মুখে বাইডেন নিরপেক্ষ অবস্থানে থেকেছেন। তিনি জাতীয় শান্তিরক্ষায় ভূমিকা পালন করেছেন।

আরেকটি পত্রিকার খবরে প্রশ্ন তুলে বলা হয়েছে, ‘বাইডেন কি এতটা ভয়াবহ?’
বার্তা সংস্থা এএফপির তথ্যানুযায়ী, সর্বশেষ ফলাফলে জো বাইডেনের ইলেকটোরাল কলেজ ভোট ২৬৪ আর ট্রাম্পের ২১৪।

মোট ৫৩৮টি ইলেকটোরাল কলেজ ভোটের মধ্যে প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হতে প্রয়োজন ২৭০টি। পেনসিলভানিয়া, নেভাদা, নর্থ ক্যারোলাইনা, জর্জিয়া ও আলাস্কায় এখনো ফলাফল স্পষ্ট হয়নি।

ভোট গণনা চলতে থাকলেও নতুন করে সংবাদ সম্মেলন করে আবার নিজেকে জয়ী ঘোষণা করেছেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। ভোট চুরির অভিযোগও তুলেছেন। বলেছেন, ‘বৈধভাবে ভোট গণনা করা হলে আমি সহজেই জিতে যাই। অবৈধভাবে ভোট গণনা করা হচ্ছে।’

মন্তব্য পড়ুন 0