এরপর ২২ ফেব্রুয়ারি নিভিয়ান একটি বিশেষ আগ্নেয়াস্ত্রের পারমিটের জন্য আবেদন করেন।

হুমকিদাতা নারী নিভিয়ানের ওপর নজরদারি চালু রাখা হয়েছিল। ৩ মার্চ এক গোয়েন্দা সদস্য তাঁর সঙ্গে কথা বলতে গেলে তিনি কোনো সাক্ষাৎকার দিতে অস্বীকার করেন। এর দুই দিন পর পুলিশকে নিভিয়ান জানান, কর্মক্ষেত্রে কর্তৃপক্ষ তাঁকে বাধ্যতামূলক ছুটি গ্রহণের নির্দেশ দিয়েছে।

নিভিয়ান ৬ মার্চ পুলিশকে বলেন, তিনি ভাইস প্রেসিডেন্ট কমলা হ্যারিসের ওপর ক্ষুব্ধ থাকলেও এখন সেখান থেকে বেরিয়ে এসেছেন। কেউ একজন নিভিয়ানকে বলেছিল, কমলা হ্যারিস প্রকৃত অর্থে একজন কৃষ্ণাঙ্গ নন। ভাইস প্রেসিডেন্ট হিসেবে শপথ গ্রহণের সময় তিনি বাইবেলে হাত না রেখে অন্যত্র হাত রেখেছেন।

কৃষ্ণাঙ্গ বাবা ও ভারতীয় মায়ের সন্তান কমলা হ্যারিস ভাইস প্রেসিডেন্ট হিসেবে প্রার্থী হওয়ার পর থেকেই তাঁকে নিয়ে এমন প্রচারণা চলছে। নিজেকে কৃষ্ণাঙ্গ হিসেবেই পরিচয় দিয়েছেন ভাইস প্রেসিডেন্ট কমলা হ্যারিস। যদিও সাবেক প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সমর্থকেরা তাঁর বিরুদ্ধে ব্যাপক বিরূপ প্রচারণা চালিয়েছে। এমন প্রচারণা এখনো অব্যাহত আছে।

যুক্তরাষ্ট্র থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন