টুইটার কিনতে টুইটার কর্তৃপক্ষের সঙ্গে মাস্কের চুক্তিতে টেসলার কোনো সংশ্লিষ্টতা নেই। টুইটার কেনার অর্থ কোথা থেকে আসবে, সেটাও প্রকাশ করেননি ইলন মাস্ক। কিন্তু এরপরও বাজারে গুঞ্জন শুরু হয় যে, ইলন মাস্ক টেসলার শেয়ার বিক্রি করে টুইটার কেনার অর্থ জোগান দেবেন। এই পরিস্থিতির মধ্যে গতকাল মঙ্গলবার পুঁজিবাজারে ১২ দশমিক ২ শতাংশ দরপতনে টেসলার বাজারমূল্য কমে ১২ হাজার ৬০০ কোটি ডলার এবং শেয়ারের মূল্যও ২ হাজার ১০০ কোটি ডলার কমে যায়।

মার্কিন বিনিয়োগ প্রতিষ্ঠান ওয়েডবাশ সিকিউরিটিজের বিশ্লেষক ড্যানিয়েল ইভস বলছেন, টুইটারের জন্য অর্থের জোগান দিতে ইলন মাস্ক তাঁর শেয়ার বিক্রি করে দিচ্ছেন, এমন উদ্বেগ থেকেই টেসলার শেয়ারে এ দরপতন। তবে রয়টার্সের পক্ষ থেকে যোগাযোগ করা হলেও টেসলা তাৎক্ষণিক কোনো মন্তব্য করেনি।

২০২০ সালের ডিসেম্বরের পর গতকাল মঙ্গলবার যুক্তরাষ্ট্রের পুঁজিবাজারের প্রযুক্তি কোম্পানিনির্ভর নাসডাক সূচক সর্বনিম্ন পর্যায়ে থেকে দিন শেষ হয়েছে। এদিন শুধু টেসলা নয়, দরপতন দেখেছে টুইটারও। কোম্পানিটির শেয়ারপ্রতি মূল্য ৩ দশমিক ৯ শতাংশ কমে হয়েছে ৪৯ দশমিক ৬৮ ডলার। যদিও ইলন মাস্ক ৫৪ দশমিক ২০ ডলার মূল্যে নগদ অর্থ দিয়ে টুইটারের সব শেয়ার কিনে নেওয়ার ব্যাপারে চুক্তিতে পৌঁছেছেন। এ বছর শেষ হওয়ার আগেই দুই পক্ষের আনুষ্ঠানিক চুক্তি হবে।

যুক্তরাষ্ট্রের বৈদেশিক মুদ্রা লেনদেনকারী প্রতিষ্ঠান ওয়ানডা করপোরেশনের জ্যেষ্ঠ বাজার বিশ্লেষক এড মোয়া বলছেন, ‘এভাবে টেসলার শেয়ার একের পর এক দরপতন হতে থাকলে টুইটার কেনার জন্য তহবিল সংগ্রহ করার ক্ষেত্রে বিপাকে পড়বেন মাস্ক।’ রয়টার্সের ওই প্রতিবেদনে আরও এক ধাপ এগিয়ে বলা হচ্ছে, এমনটা হতে থাকলে ২৩ হাজার ৯০০ কোটি ডলারের মালিকানা নিয়ে বিশ্বের শীর্ষ ধনী ইলন মাস্ককে টুইটার কেনার চুক্তি নিয়ে দ্বিতীয়বার ভাবতে হতে পারে।

যুক্তরাষ্ট্র থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন