বিজ্ঞাপন

গতকাল এ ঘোষণা দেওয়ার ১৬ দিন আগেও একবার গাইডলাইন বদল করেছিল সিডিসি। এরপর আবারও পরিবর্তন আনা হলো। এর আগে গত মার্চে গাইডলাইনে পরিবর্তন এনে সমালোচিত হয়েছিল সংস্থাটি। তখন টিকা নেওয়া প্রবীণ ব্যক্তিদের সঙ্গে স্বজনদের সাক্ষাতের ব্যাপারে নিরুৎসাহিত করেছিল সিডিসি।

ভারতের গণমাধ্যম এনডিটিভির খবরে বলা হয়েছে, সিডিসি এমন দিনে এই গাইডলাইনের পরিবর্তন আনল, যেদিন থেকে যুক্তরাষ্ট্রের কিশোর-কিশোরীদের করোনার টিকা দেওয়া শুরু হয়েছে। ১২ থেকে ১৫ বছরের ১ কোটি ৭০ লাখ কিশোর-কিশোরীকে টিকা দেওয়া শুরু হয়েছে এই দিন থেকে।

সিডিসির পরিচালক রোশেল ওয়ালেনস্কি বলেন, যুক্তরাষ্ট্রে দৃশ্যমানভাবে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ কমে যাওয়া, কিশোর-কিশোরীদের টিকা দেওয়া শুরু পর নতুন এই গাইডলাইন দেওয়া হলো। তিনি বলেন, বিজ্ঞানের ওপর নির্ভর করেই এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনও সিডিসির এই ঘোষণায় ব্যাপক উচ্ছ্বসিত। তিনি গতকাল মাস্ক ছাড়া সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেছেন। তিনি বলেন, ‘আমরা ধারণা এটি একটি মাইলফলক। এটি একটি অসাধারণ দিন।’

বাইডেন বলেন, ‘আপনি যদি টিকার দুই ডোজ নিয়ে থাকেন, তবে আপনি মাস্ক খুলে ফেলতে পারবেন। হাসিমুখে আপনি মানুষকে অভিনন্দন জানাতে পারবেন—যার জন্য যুক্তরাষ্ট্রের নাগরিকেরা পরিচিত।’ এ কথা বলে বাইডেন নিজেও হেসেছেন।

সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলার আগে বাইডেন আইনপ্রণেতাদের সঙ্গে বৈঠক করেন। এ প্রসঙ্গে রিপাবলিকান সিনেটর শেলি মুর কেপিটো সাংবাদিকদের বলেন, বাইডেন ওই বৈঠকে মাস্ক ব্যবহার করেননি। এ ছাড়া হোয়াইট হাউসে কর্মরত কয়েকজন সাংবাদিকও এই ঘোষণা শোনার পর মাস্ক খুলে ফেলেন।

করোনাভাইরাসের মহামারিতে সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত দেশ যুক্তরাষ্ট্র। করোনার সার্বক্ষণিক তথ্য সরবরাহকারী ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডোমিটারসের তথ্য অনুসারে, ৩ কোটি ৩৬ লাখের বেশি মানুষ আক্রান্ত হয়েছেন। মারা গেছেন ৫ লাখ ৯৮ হাজারের বেশি মানুষ। আর সুস্থ হয়েছেন ২ কোটি ৬৬ লাখ রোগী।

যুক্তরাষ্ট্র থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন