default-image

দরিদ্র দেশগুলোর গ্রিনহাউস গ্যাস নির্গমন হ্রাসে সাহায্য করতে জলবায়ু অর্থায়ন বাড়াবে যুক্তরাষ্ট্র। গত বৃহস্পতিবার যুক্তরাষ্ট্র এ কথা বলেছে। এ ছাড়া পরিবর্তিত জলবায়ুর সঙ্গে খাপ খাইয়ে নিতে ওবামা প্রশাসনের সর্বোচ্চ গড় স্তরের চেয়ে ২০২৪ সালের মধ্যে অর্থায়ন দ্বিগুণ করবে দেশটি।

হোয়াইট হাউস বলেছে, তারা জলবায়ু সংকটকে জরুরি বিবেচনায় এবং ট্রাম্প প্রশাসনের সময় যুক্তরাষ্ট্রের তহবিল হ্রাসের ক্ষতিপূরণ হিসেবে উন্নয়নশীল দেশগুলোতে আন্তর্জাতিক সহায়তার জন্য ‘উচ্চাভিলাষী তবে অর্জনযোগ্য লক্ষ্য’ গ্রহণ করেছে।

হোয়াইট হাউসের পক্ষ থেকে আরও বলা হয়েছে, বর্তমান বা প্রত্যাশিত জলবায়ু পরিবর্তনের সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখে ২০২৪ সাল নাগাদ জলবায়ুর সঙ্গে খাপ খাইয়ে নেওয়ার বিষয়ে তিন গুণ অর্থায়ন করবে যুক্তরাষ্ট্র। এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় আইন প্রণয়নে কংগ্রেসের সঙ্গে কাজ করা হবে।

বাইডেন প্রশাসন ২০০৫ সালের তুলনায় ৫০–৫২ শতাংশ কার্বন হ্রাসের নতুন লক্ষ্য নিয়ে তার জলবায়ু আর্থিক পরিকল্পনা প্রকাশ করেছে।

গত বৃহস্পতিবার আন্তর্জাতিক এক সম্মেলনে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন বলেন, জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবিলায় চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নিতে হবে চলতি দশকেই। এ সময় তিনি ২০৩০ সালের মধ্যে নিজের দেশের কার্বন নিঃসরণের হার ২০০৫ সালের তুলনায় ৫০–৫২ শতাংশ কমানোর প্রতিশ্রুতি দেন।

বিজ্ঞাপন

ভার্চ্যুয়াল এই সম্মেলনে বিশ্বের ৪০টি দেশের সরকার ও রাষ্ট্রপ্রধানেরা যোগ দেন।

গত বৃহস্পতিবার কয়েকটি বেসরকারি সংস্থার পক্ষ থেকে বলা হয়, চীনের পর যুক্তরাষ্ট্রই বিশ্বে সবচেয়ে বেশি কার্বন নিঃসরণকারী দেশ। তাদের ২০৩০ সালের মধ্যে ৮০০ বিলিয়ন মার্কিন ডলার আন্তর্জাতিক জলবায়ু তহবিলে দিতে হবে, তবেই তা ন্যায্য পাওনা হবে।

চীন এই সম্মলনে অংশ নিয়েছে। অর্থনৈতিক নানা বিষয়, দক্ষিণ চীন সাগরে আধিপত্য বিস্তার এবং চীনের নানা মানবাধিকার ইস্যু নিয়ে বেইজিং ও ওয়াশিংটনের মধ্যে সম্পর্কের অনেকটাই অবনতি হয়েছে সাম্প্রতিক কালে। তবে বিশ্বের সবচেয়ে শক্তিশালী অর্থনীতির এই দুই দেশ জলবায়ু পরিবর্তনের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে একমত হতে পেরেছে।

একশনএইড ইউএসএসের নির্বাহী পরিচালক নিরাঞ্জলি আমেরাসিংহে বলেন, দরিদ্র দেশগুলোতে কার্বন নির্গমন কমানোতে আর্থিক ও অন্যান্য সাহায্য দেওয়ার ক্ষেত্রে যুক্তরাষ্ট্রের বাধ্যবাধকতা আছে। এসব দেশের সম্মুখসারির সম্প্রদায়গুলো যেন জলবায়ুর প্রভাব মোকাবিলা করে টিকে থাকে, তা নিশ্চিত করতে হবে।

যুক্তরাষ্ট্র থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন