default-image

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট হচ্ছেন ডেমোক্র্যাট জো বাইডেন। নির্বাচনে জয়ের পর তাঁকে অভিনন্দন জানিয়েছেন তাঁর দলের বর্তমান ও সাবেক নেতারা। ছিলেন সাবেক প্রেসিডেন্টরাও। তাঁকে অভিনন্দন জানিয়ে টুইট করেছেন প্রতিদ্বন্দ্বী দল রিপাবলিকানের নেতারাও।
বাইডেনকে অভিনন্দন জানিয়ে টুইট করেছেন সিনেটর মিট রমনি। রমনি রিপাবলিকানদের প্রেসিডেন্ট প্রার্থী হিসেবে ২০১২ সালে নির্বাচন করে হেরে যান। রমনি টুইটারে লিখেন, ‘আমি ও এন (রমনির স্ত্রী) নির্বাচিত প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন ও কমলা হ্যারিসকে অভিনন্দন জানাচ্ছি। আমরা জানি তাঁরা দুজনই ভালো মনের ও প্রশংসনীয় চরিত্রের। আমরা প্রার্থনা করছি, সামনের দিনগুলোতে সৃষ্টিকর্তা তাঁদের মঙ্গল করুক।’  

বিজ্ঞাপন

২০১৬ সালে রিপাবলিকান দলের প্রেসিডেন্ট প্রার্থী হওয়ার দৌড়ে ট্রাম্পের বিপক্ষে লড়েছিলেন ফ্লোরিডা অঙ্গরাজ্যের সাবেক গভর্নর জেব বুশ। তিনিও জো বাইডেনকে অভিনন্দন জানিয়ে টুইট করেছেন। তিনি বাইডেনের উদ্দেশে লিখেছেন, ‘আমি আপনার সফলতার জন্য প্রার্থনা করতে থাকব।’
বার্তা সংস্থা এএফপি জানায়, বাইডেনের জয়ের খবরে তাঁকে অভিনন্দন জানিয়েছেন সাবেক প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা। এক বিবৃতিতে তিনি বলেন, ‘আমি জানি, তিনি (বাইডেন) প্রতিটা মার্কিন জনগণের স্বার্থে হৃদয় থেকে কাজ করবেন।’
সাবেক প্রেসিডেন্ট বিল ক্লিনটনও অভিনন্দন জানিয়েছেন বাইডেনকে। এক টুইট বার্তায় তিনি বলেন, ‘আমেরিকার জনগণ কথা বলেছে এবং গণতন্ত্রের বিজয় হয়েছে। এখন আমাদের নির্বাচিত প্রেসিডেন্ট ও নির্বাচিত ভাইস প্রেসিডেন্ট আমাদের জন্য কাজ করবেন এবং আমাদের সবাইকে ঐক্যবদ্ধ করবেন।’

বাইডেন ও কমলার জয়ে সাবেক প্রেসিডেন্ট জিমি কার্টারও অভিনন্দন জানিয়েছেন। এক বিবৃতিতে তিনি বলেছেন, ‘তাঁরা (বাইডেন ও কমলা) যে ইতিবাচক পরিবর্তন আনবেন, তা দেখার প্রত্যাশায় রয়েছি।’
যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক ফার্স্ট লেডি ও সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী হিলারি ক্লিনটনও অভিনন্দন জানিয়েছেন। টুইট বার্তায় তিনি লিখেছেন, ‘ভোটারেরা কথা বলেছেন এবং তাঁরা আমাদের পরবর্তী প্রেসিডেন্ট ও ভাইস প্রেসিডেন্ট হিসেবে জো বাইডেন ও কমলা হ্যারিসকে বেছে নিয়েছেন। এটি ঐতিহাসিক এক রায়, আর ট্রাম্পের প্রতি অস্বীকৃতির প্রকাশ। আমেরিকায় নতুন এক অধ্যায় সূচিত হলো। এটা সম্ভব করতে যারা সহযোগিতা করেছেন, তাঁদের প্রত্যেককেই ধন্যবাদ।’

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0