বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

বাইডেন আরেক মেয়াদে প্রেসিডেন্ট হতে নির্বাচন করতে চান বলে তিনি তাঁর ঘনিষ্ঠ সহযোগী-মিত্রদের বলছেন—গণমাধ্যমে সম্প্রতি এমন প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়। এ প্রেক্ষাপটে হোয়াইট হাউসের পক্ষ থেকে নিশ্চিত করা হলো যে আগামী প্রেসিডেন্ট নির্বাচন করার ইচ্ছা বাইডেনের রয়েছে।

প্রায় ৭৯ বছর বয়সী বাইডেনের গ্রহণযোগ্যতার হার নিম্নমুখী। ওয়াশিংটন পোস্ট ও এবিসির জরিপ অনুযায়ী, তাঁর গ্রহণযোগ্যতার হার কমে প্রায় ৪০ শতাংশে দাঁড়িয়েছে।

বাইডেনের ডেমোক্রেটিক পার্টির কোনো কোনো সদস্য ভেবেছিলেন, তিনি হয়তো আরেক মেয়াদে প্রেসিডেন্ট থাকার জন্য আগামী নির্বাচনে লড়বেন না। কিন্তু তাঁদের ভাবনা যে ভুল, তা হোয়াইট হাউসের বক্তব্যে নিশ্চিত হলো।

রিপাবলিকান পার্টির ক্ষমতাসীন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পকে হারিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট হন বাইডেন। চলতি বছরের ২০ জানুয়ারি তিনি দায়িত্ব নেন।

২০২০ সালের নির্বাচনে দেশটির সবচেয়ে বয়স্ক প্রেসিডেন্ট প্রার্থী হিসেবে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন বাইডেন। ২০২৪ সালে তিনি যখন প্রথম মেয়াদ শেষ করবেন, তখন তাঁর বয়স হবে ৮২ বছর।

মার্কিন প্রেসিডেন্টের দায়িত্ব নেওয়ার পর গত শুক্রবার বাইডেন প্রথমবারের মতো তাঁর স্বাস্থ্য পরীক্ষা করান। ৭৯তম জন্মবার্ষিকীর ঠিক আগের দিন বাইডেনের স্বাস্থ্য পরীক্ষা করা হলো। স্বাস্থ্য পরীক্ষার পর চিকিৎসকেরা জানান, বাইডেন প্রেসিডেন্টের দায়িত্ব পালনে সক্ষম।

বাইডেনের ভাইস প্রেসিডেন্ট কমলা হ্যারিস ২০২৪ সালের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে লড়তে পারেন বলে গুঞ্জন আছে। তবে তাঁর গ্রহণযোগ্যতা কমে বর্তমানে ২৮ শতাংশে দাঁড়িয়েছে।

যুক্তরাষ্ট্র থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন