বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

আতাউর রহমান বলেন, এ বছরের সম্মিলন অনুষ্ঠানটি আয়োজন করা হয়েছে নিউইয়র্কের ম্যানহাটানের প্রাকৃতিক পরিবেশে। সম্মিলনে আমেরিকায় স্থায়ী হওয়া নান্দাইল উপজেলার বাসিন্দারা তাঁদের স্ত্রী–সন্তানসহ অংশ নিয়েছেন। তাঁর ছোট ভাই মো. জিল্লুর রহমানও আমেরিকায় বসবাস করেন। পাশের মুশুলি গ্রামের জুয়েল মিয়া, পালাহার গ্রামের সালাহ উদ্দিন, গাংগাইল গ্রামের আজিজুর রহমানসহ নান্দাইলের ৫০ জনের বেশি মানুষ আমেরিকায় থাকেন।

আতাউর রহমান আরও বলেন, আমেরিকার মতো উন্নত দেশে বসবাস করলেও তাঁরা নিজের শিকড়কে ভুলে যাননি। তাই প্রতিবছর সেপ্টেম্বর মাসের দ্বিতীয় সপ্তাহের রোববার আমরা নান্দাইলবাসী (ময়মনসিংহ) ব্যানারে সম্মিলন আয়োজন করে তাঁরা স্বজনদের সঙ্গে সুখ-দুঃখ ভাগাভাগি করেন। পাশাপাশি নানা ধরনের খেলাধুলাসহ খাবারের আয়োজন করে তাঁরা দিনটি আনন্দে কাটান।

নান্দাইলের দুজন বাসিন্দা বলেন, ‘সপ্তাহে একাধিকবার আমেরিকায় বসবাসরত স্বজনদের সঙ্গে মুঠোফোনে কথা হয়। কিন্তু সবাইকে একসঙ্গে ভিডিওতে দেখা ও কুশলবিনিময় শুধু বছরে একবারই সম্মিলনের দিনে হয়ে থাকে। তাই আমরা এ দিনটির অপেক্ষায় থাকি।’

দূর পরবাস থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন