default-image

আফরোজা হোসাইন

আফরোজা হোসাইন নির্বাচন করছেন বর্তমান ক্ষমতাসীন দল লিবারেল পার্টি থেকে। তিনি অন্টারিও প্রভিন্সের অসওয়া নির্বাচনী আসন থেকে নির্বাচন করছেন। তিনি ৩২ বছর আগে সপরিবার কানাডায় এসে বসবাস শুরু করেন। তিনি ইউনিভার্সিটি অব অন্টারিওর ইনস্টিটিউট অব টেকনোলজিতে পড়াশোনা করেন। ২০১৯ সালেও ফেডারেল নির্বাচনে অংশ নেন আফরোজা।

default-image

মোহসিন ভূঁইয়া

প্রধান বিরোধী দল কনজারভেটিভ পার্টি থেকে অন্টারিও প্রভিন্সের স্কারবোরো সাউথওয়েস্ট নির্বাচনী আসনে প্রার্থী হয়েছেন মোহসিন ভূঁইয়া। তিনি বাংলাদেশি–অধ্যুষিত এলাকায় বসবাস করেন। এ এলাকায় প্রচুর বাংলাদেশি ভোটার রয়েছেন। মোহসিন ভূঁইয়া কানাডায় রাজনীতির পাশাপাশি ব্যবসাও করেন।

default-image

খালিস আহমেদ

এ নিয়ে তৃতীয়বার কানাডার তৃতীয় বৃহত্তম রাজনৈতিক দল নিউ ডেমোক্রেটিক পার্টি থেকে নির্বাচন করছেন খালিস আহমেদ। এবার তিনি অ্যালবার্টা প্রভিন্সের নোস হিল আসনে লড়ছেন। বাংলাদেশের জাহাঙ্গীরনগর ইউনিভার্সিটি ও নরওয়েতে পড়াশোনা করে কানাডায় রাজনীতির পাশাপাশি মাইনিং কোম্পানিতে কাজ করেন। দুই সন্তানের জনক খালিস আহমেদ বলেন, ‘আমরা বাংলাদেশিদের জন্য কানাডার মূলধারার রাজনীতির পথ করে দিয়ে গেলাম, আগামী প্রজন্ম এই পথ দিয়ে হেঁটে অনেক দূর যাবে।’

default-image

গুলশান আক্তার

আলবার্টার কনজারভেটিভ পার্টির ঘাঁটি হিসেবে পরিচিত ক্যালগিরি কনফেডারেশন থেকে নির্বাচন করছেন গুলশান আক্তার। তিনি নির্বাচন করছেন নিউ ডেমোক্রেটিক পার্টির প্রার্থী হিসেবে। এর আগে তিনি প্রভিন্সিয়াল নির্বাচনে অংশ নিয়েছিলেন।

default-image

ফাইজ কামাল

স্কারবোরো সেন্টার আসনে নির্বাচন করছেন ফাইজ কামাল। তিনিও নির্বাচন করছেন নিউ ডেমোক্রেটিক পার্টির প্রার্থী হিসেবে। তাঁর আসনটি অন্টারিও প্রভিন্সে।

default-image

সৈয়দ মহসীন

কনজারভেটিভ পার্টি থেকে মনোনয়ন পেয়েছেন সৈয়দ মহসীন। তাঁর নির্বাচনী এলাকা মেট্রো ভ্যাঙ্কুভারের সোরি-নিউটন আসন। ঢাকার মিরপুরের সাবেক সাংসদ ও ঢাকা সিটির ডেপুটি মেয়র এস এ খালেকের ছেলে সৈয়দ মহসীন ১৯৯৩ সালের উপনির্বাচনে সাংসদ নির্বাচিত হয়েছিলেন।

কানাডায় বসবাসরত বাংলাদেশিরা তাকিয়ে আছেন ২০ সেপ্টেম্বরের নির্বাচনের দিকে। অনেকেই সাফল্য কামনা করছেন এ ছয় বাংলাদেশির।

দূর পরবাস থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন