সৈয়দ মনজুরুল ইসলাম

প্রথম আলো শুধু পড়েনই না, পত্রিকাটিতে লেখেনও এবং সে লেখা পড়ে যখন কেউ প্রতিক্রিয়া জানান, তাতে আনন্দ পান বলে উল্লেখ করেন শিক্ষাবিদ ও কথাসাহিত্যিক সৈয়দ মনজুরুল ইসলাম। তিনি বলেন, এখন সবাই সব খবর জানে। খবরের পেছনে কিছু ঘটনা থাকে। সাংবাদিকেরা যাঁরা আছেন, তাঁরা এমন প্রতিকূল পরিস্থিতিতে খবরের পেছনের খবর তুলে আনেন, সেটিই আসল খবর। প্রথম আলোর মাধ্যমে খবরের সেসব পেছনের খবর পরিষ্কার করা হয়।

পত্রিকার সঙ্গে পাঠকের একটা অভ্যাস তৈরি হয়ে যায় উল্লেখ করে সৈয়দ মনজুরুল ইসলাম বলেন, তথ্য তো প্রচুর আছে। সে তথ্য প্রক্রিয়াজাত করে জ্ঞানে রূপান্তরিত করে এগোতে হয়। তথ্যের মাধ্যমে যে সত্য উন্মোচিত হয়, তা বিকৃত করার উপায় নেই। প্রথম আলো সে সত্য উন্মোচনের কাজ করে যাচ্ছে।

প্রথম আলোর কাছে প্রত্যাশার কথা জানিয়ে সৈয়দ মনজুরুল ইসলাম বলেন, পত্রিকাটি যেন তার শক্তিটা ধরে রাখে।

সৈয়দা রিজওয়ানা হাসান

প্রথম আলোকে একটি ‘স্মার্ট’ ইনস্টিটিউশন বলে অভিহিত করেন বাংলাদেশ পরিবেশ আইনবিদ সমিতির (বেলা) প্রধান নির্বাহী সৈয়দা রিজওয়ানা হাসান। তিনি বলেন, প্রথম আলো তার পাঠক ও কর্মীদের কাছে দায়বদ্ধ এবং বস্তুনিষ্ঠতার সঙ্গে কাজ করে। প্রথম আলো তথ্য–উপাত্ত দিয়ে সুন্দরভাবে খবর উপস্থাপন করে। তিনি প্রথম আলো সম্পাদক মতিউর রহমানকে ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন, বাংলাদেশে কারিগর তৈরি করা এবং তাঁদের টিকিয়ে রাখা সোজা কথা নয়।

প্রথম আলো ভবিষ্যতে পরিবেশ নিয়ে একটি সাময়িকী প্রকাশ করবে এবং স্থানীয় জনগোষ্ঠীর খবর আরও গুরুত্ব দিয়ে ছাপাবে বলে আশা প্রকাশ করেন রিজওয়ানা হাসান। তিনি করপোরেটের প্রভাব ও সরকারের নিয়ন্ত্রণের মধ্যেও প্রথম আলো যেন ন্যায়ের পক্ষে থাকে, সে আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

কামাল কাদীর

বিকাশের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা কামাল কাদীর বলেন, প্রতিষ্ঠানের জন্য নিয়তটা পরিষ্কার থাকা গুরুত্বপূর্ণ। বাংলাদেশের যেকোনো প্রতিষ্ঠান বৈশ্বিক প্রতিষ্ঠান হিসেবে গড়ে উঠতে পারে, যদি নিয়ত সঠিক থাকে। প্রতিষ্ঠান সঠিক নিয়ম মেনে চললে তা এগিয়ে যাবে।

চঞ্চল চৌধুরী

প্রথম আলোর সঙ্গে নিজের সম্পর্কটা আবেগের বলে জানান অভিনেতা চঞ্চল চৌধুরী। তিনি বলেন, আবেগে আক্রান্ত হওয়ার মতো অনেক আয়োজন প্রথম আলো করে। তিনি জানান, তাঁর শিক্ষক ও কার্টুনিস্ট শিশির ভট্টাচার্য্যের আঁকা যেসব কার্টুন প্রথম আলোতে ছাপা হতো, তা কেটে তিনি সংরক্ষণ করতেন। সেগুলো এখনো আছে।

চঞ্চল চৌধুরী বলেন, ‘কোনো দাঁড়ানোর জায়গা যখন ছিল না, তখন আমার ক্ষুদ্র যোগ্যতাকে মূল্যায়ন করে প্রথম আলো আমাকে সঙ্গে রেখেছে। প্রথম আলো যাকে ধরে তাকে ছাড়ে না, আর যারা প্রথম আলোকে ধরে, তারাও ছাড়তে পারে না।’