প্রথম আলোর সঙ্গে আছি

প্রথম আলোর ২৪তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে প্রথম আলোর প্রকাশক, সম্পাদক, সাংবাদিক, পাঠক, সংবাদপত্রশ্রমিক ও সংবাদপত্র এজেন্টসহ সংশ্লিষ্ট সবাইকে জানাই আন্তরিক অভিনন্দন ও শুভেচ্ছা।

গণতন্ত্রের অগ্রযাত্রা অব্যাহত রাখতে এবং শোষণমুক্ত সমাজ গঠনে প্রথম আলোর ভূমিকা খুবই গুরুত্বপূর্ণ বলে মনে করি। মুক্ত গণমাধ্যম গণতন্ত্রকে সুসংগঠিত করে, সেই দিক থেকে প্রথম আলো আপসহীনভাবে ২৪ বছর ধরে দেশ ও জনগণের স্বার্থকে অগ্রাধিকার দিয়ে কাজ করে যাচ্ছে। প্রথম আলোর এই সাহসী ভূমিকার সঙ্গে আমরাও একান্তভাবে জড়িয়ে আছি। ভবিষ্যতে আমরা সবাই প্রথম আলোর ধারাবাহিক সাফল্য কামনা করছি।

মো. দুলাল হোসেন

সভাপতি, রাজশাহী মহানগর সংবাদপত্র শ্রমিক ইউনিয়ন

শততম জন্মদিনের প্রত্যাশা

প্রিয় প্রথম আলোর ২৪তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে ময়মনসিংহ সংবাদপত্র হকার বহুমুখী সমবায় সমিতির পক্ষ থেকে আন্তরিক শুভেচ্ছা ও কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি।

প্রথম আলো ও সংবাদপত্র হকার সমিতি একই সুতায় গাঁথা। ২৪ বছর ধরে সুখ–দুঃখ, আনন্দ ও সফলতার সঙ্গে প্রথম আলো আমাদের পাশে ছিল, আছে এবং থাকবে। প্রথম আলো সংবাদ পরিবেশনের ক্ষেত্রে যেমন আপসহীন, তেমনি অন্য সব পত্রিকা থেকে আলাদা ও ব্যতিক্রম। সারা দেশের মতো প্রথম আলো ময়মনসিংহের পাঠকদের কাছেও বিপুলভাবে প্রশংসনীয়।

আমরা আশা করি, এই প্রশংসা ও সুনাম যুগের পর যুগ ধরে অব্যাহত থাকবে। আমরা ময়মনসিংহ হকার সমিতির সব সদস্য কৃতজ্ঞতার সঙ্গে বলছি প্রথম আলো বিক্রি করে আমরা অন্য রকম আনন্দ ও তৃপ্তি পাই। তাই ময়মনসিংহ হকার সমিতি বিগত দিনগুলোতে প্রথম আলোর
যেকোনো কর্মকাণ্ডে সহযোগিতার হাত বাড়িয়েছি। তেমনি প্রথম আলোও সব সময় হকার ও এজেন্টদের পাশে থেকে সব ধরনের সহযোগিতা করে আসছে।

বিশেষ করে, আমরা ময়মনসিংহ হকার সমিতি প্রথম আলোকে সুখে–দুঃখে সব সময় পাশে পাই। পত্রিকার জগতে যত সুযোগ–সুবিধা পাই, তা প্রথম আলোর হাত ধরেই এসেছে। প্রথম আলোকে অনুসরণ করে অন্য সব পত্রিকা বাজারজাত করার চেষ্টা করে।

প্রথম আলো শুধুই একটি পত্রিকা নয়, এটি দেশের আর্থসামাজিক উন্নয়নে ভূমিকা রাখছে। তাই শুধু ২৪তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী নয়, বরং ১০০তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদ্‌যাপনের আশাবাদ ব্যক্ত করছি। প্রথম আলোর সবাইকে আন্তরিক ধন্যবাদ।

মো. জাহাঙ্গীর আলম রিপন

সভাপতি, ময়মনসিংহ সংবাদপত্র হকার বহুমুখী সমবায় সমিতি লিমিটেড

দুর্দিনে পাশে থাকে প্রথম আলো

কোনো সংবাদপত্র আমাদের হাত ধরেই পাঠকের দরজায় পৌঁছায়। পত্রিকা তো বাজারে আছে অনেক। আমরা সংবাদপত্র হকাররা পাঠকচাহিদা আছে, এমন পত্রিকাগুলোই বিক্রি করতে পছন্দ করি। পত্রিকার এজেন্ট এবং হকারদের মাধ্যমেই পাঠকচাহিদা বুঝতে পারে সংবাদপত্র কর্তৃপক্ষ। চাহিদার শীর্ষে থাকায় প্রথম আলো চট্টগ্রামে বিপুল পাঠকপ্রিয়তা পেয়েছে। চট্টগ্রামে প্রথম আলোর প্রচারসংখ্যা অন্য সব পত্রিকার তুলনায় অনেক অনেক বেশি। শুধু প্রথম আলো যত কপি বিক্রি হয়, বাকি সব পত্রিকা মিলিয়েও তত কপি বিক্রি হয় না।

করোনাকালে সব পত্রিকার বিক্রি অস্বাভাবিকভাবে কমে গেছে। কিন্তু অনেক পত্রিকার ভিড়ে প্রথম আলোর অবস্থান এখনো শীর্ষে। স্থায়ী গ্রাহক কিংবা ভাসমান পাঠকের কাছে প্রথম আলোর চাহিদা কমেনি, বরং বেড়েই চলেছে। হকাররা প্রথম আলো বিক্রি করতেই বেশি পছন্দ করেন এবং আনন্দ পান। পাঠক একজন হকারের কাছে এসে প্রথমেই প্রথম আলোই চান। সংবাদপত্র হকারদের অনেকের জীবন–জীবিকার সঙ্গে জড়িয়ে গেছে প্রথম আলো। এ পত্রিকার দেওয়া কমিশন বেশির ভাগ হকারের আয়ের প্রধান উৎস। এ ছাড়া প্রথম আলোর সম্পাদক মতিউর রহমান বহুবার সংবাদপত্র হকারদের নানাভাবে সাহায্য–সহযোগিতা করেছেন। দুর্দিনে পাশে থেকেছেন। সমিতিকে ব্যবসায় সাহায্য করেছেন। নানাভাবে ব্যবসা চালু রাখতে সহায়তা করেছেন। তা না হলে করোনাকালে সংবাদপত্র হকার্স সমিতি ব্যবসায়িক বিপর্যয়ের সম্মুখীন হতো। আমরা প্রথম আলোকে তাই নিজেদের ভাগ্য পরিবর্তনের সঙ্গী মনে করি।

প্রথম আলোর ২৪তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে সার্বিক মঙ্গল কামনা করে সমিতির পক্ষ থেকে অনেক অনেক শুভেচ্ছা রইল।

মো. নজরুল ইসলাম লিটন

সম্পাদক, চিটাগাং সংবাদপত্র হকার্স বহুমুখী সমবায় সমিতি লিমিটেড

শুভ হোক পথচলা

১৯৮০ সালে আমার বয়স যখন ১৬, তখন থেকেই জাতীয় ও স্থানীয় পত্রিকা পাঠকের হাতে পৌঁছে দেওয়ার কাজ শুরু করি। এ পর্যন্ত অনেক পত্রিকার জন্ম দেখেছি। ১৯৯৮ সালের ৪ নভেম্বর প্রথম আলো আমাদের হাত দিয়েই পাঠকের ঘরে ঘরে পৌঁছায়। প্রথম আলো আসার আগে অনেক পত্রিকার উত্থান দেখেছি, কিন্তু কোনো পত্রিকা দুই বছরের বেশি টিকে থাকতে পারেনি। প্রথম আলো ২৪ বছর পূর্ণ করে ২৫–এ যাত্রা করল।

প্রথম আলো পাঠকদের মধ্যে বিপুল সাড়া ফেলেছে। ফলে আমাদের হকারদের আয় বেড়েছে। প্রত্যেক হকার ও পাঠকের চাওয়া প্রথম আলো। প্রথম আলোর পাঠক শিক্ষিত ও মার্জিত। প্রথম আলো আমাদের বিভিন্ন সময়ে আর্থিক সহায়তা দিয়ে পাশে দাঁড়িয়েছে। প্রথম আলো অ্যাসিডবিরোধী আন্দোলন থেকে শুরু করে বদলের কথা বলেছে। এখন তো অ্যাসিড নিক্ষেপের কথা শোনা যায় না। প্রথম আলো বিভিন্ন সামাজিক, সাংস্কৃতিক কর্মকাণ্ডে অংশগ্রহণ করে পাঠকের প্রশংসা কুড়িয়েছে। মানুষকে সত্য তথ্য দেওয়ার পাশাপাশি সুবিধাবঞ্চিত মানুষের পাশেও দাঁড়িয়েছে জনপ্রিয় এই পত্রিকা। প্রথম আলো হকার ও পাঠকের কাছে একটি আস্থা ও বিশ্বাসের জায়গা।

প্রথম আলো শত শত বছর টিকে থাকুক। শুভ হোক প্রথম আলোর পথচলা। এই পথচলার সঙ্গী হতে পেরে আমরাও গর্বিত। প্রথম আলোর সঙ্গে আছি, থাকব ইনশা আল্লাহ।

মো. মাজহারুল ইসলাম বাদল

বরিশাল সদর হকার্স ইউনিয়ন, বরিশাল

এগিয়ে যাক প্রথম আলো

সময়ের সাহসী পত্রিকা প্রথম আলো। সারা দেশের উন্নয়নের সহায়ক। সুবিধাবঞ্চিত মানুষের মুখ। পাঠকের হৃদয়জুড়ে থাকা, ‘পত্রিকার পাখি’খ্যাত হকার ভাইদের বন্ধু ও ভালোবাসার পত্রিকা প্রথম আলো। ২৪তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে খুলনা জেলা সংবাদপত্র হকার্স ইউনিয়নের কার্যনির্বাহী কমিটি ও সদস্যদের পক্ষ থেকে প্রাণঢালা শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানাই। পাশাপাশি কামনা করি, পত্রিকাটি বরাবরের মতো পাঠকপ্রিয়তার শীর্ষে ছিল এবং ভবিষ্যতেও থাকবে।

পাঠক জাগরণে প্রথম আলোর কার্যক্রমগুলো থাকুক অব্যাহত। এই মহতী কাজে সংবাদপত্রশিল্পের উন্নয়নে আমরা আছি, ছিলাম এবং থাকব প্রথম আলোর সঙ্গে। প্রথম আলো আরও এগিয়ে যাক। প্রথম আলো এগিয়ে গেলে আমরাও এগিয়ে যাব। আমরা প্রথম আলোর সঙ্গে থাকতে পেরে গর্ববোধ করছি।

মো. আনোয়ার হোসেন সরদার

সভাপতি, খুলনা জেলা সংবাদপত্র হকার্স ইউনিয়ন

পাঠকের প্রথম পছন্দ প্রথম আলো

প্রথম আলোর ২৪তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে রইল আন্তরিক শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন। প্রতিদিনই প্রথম যে পত্রিকাটি হাতে নিই, তা হলো প্রথম আলো। ঝকঝকে প্রিন্টের পাঠকপ্রিয় প্রথম আলো আমাদের পত্রিকা ব্যবসায়ীদের কাছেও প্রিয়। দেশ–বিদেশের খবরের পাশাপাশি আঞ্চলিক খবরগুলো থাকলে আমাদের পত্রিকা বিক্রিতে সহায়ক হয়। প্রথম আলো বিক্রি করতে আমাদের তেমন বেগ পেতে হয় না।

পত্রিকা ব্যবসার শুরু থেকে প্রথম আলোকে সঙ্গী হিসেবে পেয়েছি। তাই সঙ্গে আছি, থাকব। প্রথম আলো যেমন পাঠকদের আস্থার জায়গা, তেমনি আমার পরিবারেরও একজন মনে করি। পাঠকদের প্রথম পছন্দ প্রথম আলো

তবে পত্রিকার শুরুর দিকে অনেক ক্রোড়পত্র দেওয়া হতো। পাঠকদের কাছে এসব ক্রোড়পত্রের বেশ চাহিদা ছিল। এখন সেগুলো নিয়মিত না পাওয়ার কারণে অনেকেই পত্রিকা পড়া থেকে মুখ ফিরিয়ে নিচ্ছে। আগের মতো প্রথম আলোকে বড় পরিসরে আবার দেখতে চাই। অন্তরের অন্তস্তল থেকে জানাই মোবারকবাদ। প্রথম আলোর দীর্ঘায়ু কামনা করছি।

মো. মোফাজ্জল হোসেন

সাধারণ সম্পাদক, রংপুর জেলা সংবাদপত্র হকার্স ইউনিয়ন

প্রথম আলো সব সময় পাশে ছিল

দেশের বহুল প্রচারিত ও শীর্ষস্থানীয় পত্রিকা প্রথম আলোপ্রথম আলো বাজারের সেরা পত্রিকা। সমসাময়িক ঘটনা থেকে শুরু করে রাজনীতি, শিক্ষামূলক লেখা, ভ্রমণকাহিনি, খেলাধুলার পাতা খুবই সমৃদ্ধ। প্রথম আলো যেমন সামাজিক অবক্ষয় তুলে ধরে, তেমনি দুর্নীতির বিষয়গুলো তুলে ধরে সংশ্লিষ্টদের নজরে আনে। প্রথম আলো দৈনিক পত্রিকার খবরের পাশাপাশি বিভিন্ন শিক্ষামূলক কর্মসূচির আয়োজন করে। সেই সঙ্গে মেধাবী শিক্ষার্থীদের বৃত্তি প্রদান করে থাকে। পাঠকের চাহিদা পূরণেও প্রথম আলোই সবার সেরা।

আমার দেখা বাংলাদেশের সংবাদপত্রজগতে সর্বোচ্চ সময় ধরে শীর্ষস্থান দখল করে রাখা একমাত্র পত্রিকা প্রথম আলো। অতীতে প্রথম আলো পরিবারের সঙ্গে ছিলাম, বর্তমানেও আছি, ভবিষ্যতে আরও সক্রিয়ভাবে এই পরিবারের সঙ্গে সম্পৃক্ত থাকার প্রত্যাশা করছি।

প্রথম আলো সব সময় হকারদের সুখে-দুঃখে পাশে ছিল এবং আমাদের প্রত্যাশা ভবিষ্যতেও এ ধারা অব্যাহত রেখে আমাদের পাশে সক্রিয়ভাবে থাকবে। পাঠক এবং আমাদের প্রাণপ্রিয় এই পত্রিকার ২৪তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে প্রথম আলো পরিবারের সবাইকে শুভেচ্ছা। পাশাপাশি প্রথম আলো স্বকীয়তা বজায় রেখে আরও এগিয়ে যাক, এই প্রত্যাশা।

মো. আব্দুল কুদ্দুছ

সভাপতি, সিলেট মহানগর সংবাদপত্র হকার্স সমবায় সমিতি