বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

২৮ নভেম্বর এক হাজার সাতটি ইউনিয়নে তৃতীয় দফার ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। এর আগে দেশের ৮৩৪ ইউনিয়নে ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হয় গত বৃহস্পতিবার। ওই ভোট ঘিরে সহিংসতায় একজন চেয়ারম্যান পদপ্রার্থীসহ ১৩ জন নিহত হন। নির্বাচন ঘিরে প্রতিদিনই কোথাও না কোথাও প্রাণহানির ঘটনা ঘটছে। এখন পর্যন্ত ২৮ জন নিহত হয়েছেন।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, গত রোববার জুম মিটিংয়ে এ দেশের বিভিন্ন থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাদের (ওসি) সঙ্গে কথা বলেছেন পুলিশ সদর দপ্তরের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা। ওসিদের থানায় থাকা ‘গান রেজিস্ট্রার’ নিয়মিত পরীক্ষার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে পুলিশ সদর দপ্তরের একজন কর্মকর্তা প্রথম আলোকে বলেন, একটি নির্দিষ্ট এলাকায় কতজনের কাছে বৈধ অস্ত্র আছে, সে সম্পর্কে থানার অবহিত থাকার কথা। সব থানার কর্মকর্তারা এই ‘গান রেজিস্ট্রার’ পরীক্ষা করছেন না বলে মনে করছেন তাঁরা। এ ধরনের নির্বাচনে অনেকে বৈধ অস্ত্র দেখান, এর ফাঁকে অনেকে অবৈধ অস্ত্র নিয়েও ঘোরাফেরা করেন। বিষয়গুলো আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর চোখ এড়িয়ে যাচ্ছে। সে কারণেই থানাগুলোকে সতর্ক হওয়ার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।

ঢাকার বাইরের একাধিক পুলিশ সুপার বলেছেন, অবৈধ অস্ত্রবিরোধী অভিযান পুলিশের নিয়মিত কাজ। এর আগেও বিভিন্ন অবস্থার পরিপ্রেক্ষিতে অবৈধ অস্ত্র উদ্ধারে অভিযান হয়েছে। নির্বাচনের আগে অবৈধ অস্ত্রের সন্দেহভাজন মালিকদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার নজির রয়েছে। সেই ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে। তাঁরা আরও জানিয়েছেন, জেলা প্রশাসকের কার্যালয় থেকে নির্বাচনের আগে বৈধ অস্ত্র মালখানায় জমা দেওয়ার নির্দেশনাও জারি হয়েছে।

বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন