বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

ওই মামলায় আগাম জামিন চেয়ে গত ২৩ আগস্ট হাইকোর্টে আবেদন করেন এহতেশামুল হক। বুধবার আদালতে উপস্থিত হয়ে আইনজীবীর মাধ্যমে আগাম জামিন চান তিনি। তাঁর পক্ষে শুনানিতে ছিলেন আইনজীবী হাসিবুর রহমান। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন সহকারী অ্যাটর্নি জেনারেল মো. মিজানুর রহমান।

২০১৬ সালের ৫ জুন নগরের জিইসির মোড় এলাকায় ছেলেকে স্কুলবাসে তুলে দিতে যাওয়ার সময় খুন হন মাহমুদা। এ ঘটনার পর তাঁর স্বামী বাবুল আক্তার বাদী হয়ে অজ্ঞাতপরিচয় ব্যক্তিদের আসামি করে মামলা করেন। এই মামলায় সন্দেহভাজন হিসেবে কয়েকজনকে আটক করে পুলিশ। ২০১৬ সালের ২৭ জুন নগরের বাকলিয়া এলাকা থেকে মাহমুদা হত্যায় ব্যবহৃত অস্ত্র-গুলিসহ এহতেশামুল হক ভোলা ও তাঁর সহযোগী মো. মনিরকে গ্রেপ্তার করে ডিবি। ২০১৯ সালের ২৯ ডিসেম্বর জামিনে কারামুক্তি পান এহতেশামুল হক।

উচ্চ আদালতের নির্দেশে ওই মামলার তদন্তের দায়িত্ব পায় পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)। মাহমুদার বাবা ওই হত্যায় বাবুল আক্তারকে দায়ী করেন।

ওই মামলায় আদালতে চূড়ান্ত প্রতিবেদন দেয় পিবিআই। পরে বাবুল আক্তারসহ আটজনকে আসামি করে চলতি বছরের মে মাসে হত্যা মামলা করেন মিতুর বাবা মোশাররফ হোসেন। এই মামলায় ভোলা হাইকোর্টে আগাম জামিন চান। একই মামলায় ইতিমধ্যে গ্রেপ্তার হয়ে বাবুল আক্তার কারাগারে আছেন।

বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন