যৌথ সম্পাদকীয়: সম্পাদক পরিষদ

আমরা আপনাদের পাশে আছি, আপনারাও সঙ্গে থাকুন

বিজ্ঞাপন

কোভিড-১৯ বাংলাদেশসহ সারা বিশ্বে স্মরণকালের শোচনীয়তম জনস্বাস্থ্য সংকটের জন্ম দিয়েছে। সম্পূর্ণ অপ্রস্তুত অবস্থায় এই মহামারির ব্যাপক বিস্তারে শঙ্কিত মানুষদের জানাতে চাই, আমরা সংবাদকর্মীরা সারাক্ষণ আপনাদের জন্য সজাগ ও সক্রিয় রয়েছি। আমরা আপনাদের পাশে আছি।

মহামারির এই প্রবল প্রকোপের মধ্যেও পাঠকদের কাছে বস্তুনিষ্ঠ, জরুরি ও সর্বশেষ তথ্য পৌঁছে দেওয়ার মৌলিক অঙ্গীকারে আমরা অটল ও প্রতিজ্ঞাবদ্ধ। স্পর্শকাতর এই সময়ে আমরা আরও সতর্কতা, সক্রিয়তা ও আপনাদের চাহিদার দিকে লক্ষ রেখে তথ্য পরিবেশনের দিকে মনোযোগ দিয়েছি।

করোনাভাইরাস জীবনযাত্রার ধরন পাল্টে দিয়েছে। আমাদের স্বাস্থ্যব্যবস্থা, আমাদের ব্যবসা-বাণিজ্য, আমাদের শিক্ষা, আমাদের পারিবারিক জীবন নতুন এক বাস্তবতার মুখোমুখি। প্রতিদিন আমরা নিত্যনতুন পরীক্ষার মধ্য দিয়ে যাচ্ছি। তাই জীবনের যেসব ক্ষেত্রকে করোনাভাইরাস স্পর্শ করছে, সে সম্পর্কে যথাযথ তথ্য দ্রুত আপনাদের কাছে পৌঁছে দেওয়ার জন্য আমরা সংবাদকর্মীরা নিরলসভাবে কাজ করে চলেছি। আমরা এমনভাবে আপনাদের কাছে তথ্য পৌঁছে দেওয়ার জন্য সচেতন ও সক্রিয়, যাতে নিয়ত পরিবর্তমান এই পরিস্থিতি সম্পর্কে আপনারা সম্যক ধারণা পান এবং নিজেদের জন্য প্রয়োজনীয় সিদ্ধান্ত নিতে পারেন।

এই ক্রান্তিলগ্নে তথ্যনির্ভর এবং অভিজ্ঞ হাতে যাচাই-বাছাই ও সম্পাদিত খবর অন্য যেকোনো সময়ের চেয়ে জরুরি ও মূল্যবান হয়ে উঠেছে। সংকট অতিক্রম করার সর্বোচ্চ পথ তথ্যের আদান-প্রদান, অভিজ্ঞতার বিনিময় এবং ফলপ্রসূ গবেষণার ফলাফলের অংশীদারত্ব। আপনাদের কাছে সেই তথ্যসেবা পৌঁছে দেওয়ার জন্য ঝুঁকি মাথায় নিয়ে আমরা আন্তরিকভাবে আমাদের কর্তব্য পালন করে চলেছি।

পাঠকদের সর্বাত্মক সহযোগিতা করার জন্য আমরা অব্যাহতভাবে প্রকাশ করছি নানাবিধ তথ্য, মতামত, বিশ্লেষণ, প্রতিরোধমূলক পদক্ষেপ। নিয়মিত সাম্প্রতিকতম তথ্য পরিবেশন করছি, যাতে আপনারা নিজের ও পরিবারের স্বাস্থ্য সুরক্ষা ও পরিচর্যা করতে পারেন, আপনাদের ঘরবন্দী জীবনের সচলতা অব্যাহত থাকে, আপনাদের গৃহকোণ আনন্দময় ও অর্থপূর্ণ হয়ে ওঠে এবং সর্বোপরি সারা দেশ ও পৃথিবী থেকে আপনারা বিচ্ছিন্ন না হয়ে আরও একাত্ম থাকতে পারেন।

এই ভীতিকর সময়েও নানা স্থানে আমরা দেখতে পাচ্ছি মানুষের অজেয় প্রাণশক্তির পরিচয়। সেসব আশাপ্রদ খবর আমরা ভাগ করে নিচ্ছি আপনাদের সঙ্গে। করোনাভাইরাসকে পরাস্ত করার জন্য কী উপায় খুঁজছে দেশ-বিদেশের গবেষণাগারগুলো, কোন পথে সংকট কাটিয়ে উঠছে কোনো কোনো জাতি, মানুষের পাশে এই দুঃসময়ে কীভাবে এসে দাঁড়াচ্ছে মানুষ—আমরা পরিবেশন করছি সেসব তথ্যও। আতঙ্ক ছড়ানো আমাদের কাজ নয়। আমাদের কর্তব্য পরিস্থিতি সম্পর্কে আপনাদের অবগত করা এবং সাম্প্রতিকতম তথ্যে আপনাদের নিশ্চিত ও প্রস্তুত রাখা।

সংবাদমাধ্যমের কাঁধে অন্য যেকোনো সময়ের চেয়ে গুরুদায়িত্ব এসে পড়েছে। আবার একই সঙ্গে আকস্মিক এই বিরূপ সময়ে দেশের গণমাধ্যমগুলোর আর্থিক পরিস্থিতিও চাপের মুখে পড়েছে। বিঘ্নিত হচ্ছে সারা দেশে পত্রিকার বিতরণ ও বিপণন। তবু বৃহত্তর জনস্বার্থে পরিস্থিতির সঙ্গে মানিয়ে পত্রিকার প্রকাশ আমরা অব্যাহত রেখেছি। এ কর্তব্য পালন করতে গিয়ে আমরা কার্যালয় ও ছাপাখানাগুলোকে স্বাস্থ্যগত নিরাপত্তার আওতায় এনেছি, সাংবাদিকদের সুরক্ষা উপকরণ দিয়েছি এবং ঢাকাসহ সারা দেশে এজেন্ট ও হকারদের মধ্যে মাস্ক, গ্লাভস ও স্যানিটাইজার বিতরণ করেছি। এ সবকিছুর পরও আমরা এমন একটি প্রচার দেখতে পাচ্ছি যে সংবাদপত্র থেকে করোনাভাইরাস ছড়ায়। এর বৈজ্ঞানিক তথ্যভিত্তিক কোনো সত্যতা পাওয়া যায়নি। বিশ্বের কোথাও পত্রিকা ছাপা বন্ধও হয়নি।

এ দুর্যোগে আমরা গভীরভাবে অনুভব করছি ঐক্য, মৈত্রী ও সহযোগিতার প্রয়োজনীয়তা। এর মধ্য দিয়েই মানুষ বর্তমান সংকটকে পরাস্ত করবে।

পাঠক, আমরা আপনাদের পাশে আছি। আপনারাও আমাদের সঙ্গে থাকুন।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0
বিজ্ঞাপন