default-image

চলমান পরিস্থিতিতে কর্মঝুঁকিতে পড়া দরিদ্র পরিবারগুলোর জন্য ১৫ কোটি টাকা বরাদ্দ করেছে ব্র্যাক। খাদ্য কিনতে আজ বৃহস্পতিবার পরিবারগুলোকে নগদ ১৫০০ টাকা করে এই অর্থ সহায়তা দেওয়া শুরু হয়।

এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, প্রথম পর্যায়ে এক লাখ পরিবারকে ব্র্যাকের নিজস্ব তহবিল থেকে এই অর্থ সহায়তা দেওয়া হবে। ব্র্যাকের চারটি উন্নয়ন কর্মসূচি—আরবান ডেভেলপমেন্ট, আলট্রা পুওর গ্র্যাজুয়েশন, সমন্বিত উন্নয়ন ও হিউম্যানিটারিয়ানের মাধ্যমে এই সহায়তা পৌঁছে দেওয়া হবে।

ব্র্যাকের এই সহায়তা চার সদস্যের একটি পরিবারকে দুই সপ্তাহের জন্য ন্যূনতম খাদ্য উপকরণ কিনতে সাহায্য করবে। ১২টি সিটি করপোরেশন, ৮টি পৌরসভা, ৩৮টি সদর উপজেলা, হাওর, নদীবন্দর এবং বাজারহাট এলাকা এবং কক্সবাজারে রোহিঙ্গা ক্যাম্পের আশপাশের পাড়াগুলোতে বসবাসকারী স্থানীয় জনগোষ্ঠীর পরিবারগুলো এ সহায়তা পাবে।

ব্র্যাকের নির্বাহী পরিচালক আসিফ সালেহ বলেন, ‘আমাদের জরুরি সহায়তার লক্ষ্য সেসব নিম্ন আয়ের পরিবার যারা করোনাভাইরাসের প্রকোপে আয়ের উৎস হারিয়েছে। আমরা ১ লাখ পরিবারকে সহায়তা দিচ্ছি যদিও প্রয়োজন আরও অনেক বেশি পরিবারের। তাই সহানুভূতিশীল ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠান উভয়ের প্রতি আহ্বান জানাচ্ছি যেন তাঁরাও এগিয়ে আসেন। তাঁদের সাহায্য আমরা আরও অনেক বিপন্ন পরিবারের কাছে পৌঁছাতে পারব।’

আসিফ সালেহ আরও বলেন, ‘বিশ্ব ব্যাংকের উপাত্ত অনুযায়ী বাংলাদেশের মাত্র ১৫ শতাংশ মানুষ দিনে ৫০০ টাকার বেশি উপার্জন করেন। অধিকাংশ গ্রামের মানুষ শহর ও বিদেশ থেকে স্বজনদের পাঠানো অর্থের ওপর নির্ভর করেন। এটা (করোনাভাইরাস) একটি বৈশ্বিক সংকট হওয়ায় সারা পৃথিবীতে মানুষ কাজ হারাচ্ছে। এর ফলে আয় বন্ধ হয়ে গেছে।’

ব্র্যাকের নির্বাহী পরিচালক জানান, অর্থ প্রদানের এই কার্যক্রম স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও প্রশাসনের সঙ্গে সমন্বয়ের মাধ্যমে পরিচালিত হবে, যাতে একই পরিবারের কাছে একাধিকবার সাহায্য না যায় এবং যথাসম্ভব বেশিসংখ্যক অতিদরিদ্র পরিবারের কাছে সহায়তা পৌঁছানো সম্ভব হয়।

আরও বেশিসংখ্যক অতিদরিদ্র পরিবারের কাছে সহায়তা পৌঁছানোর লক্ষ্যে তহবিল সংগ্রহের একটি উদ্যোগও নিয়েছে ব্র্যাক। এর বিস্তারিত পাওয়া যাবে ব্র্যাকের ওয়েবসাইটে https://www.brac.net/covid19/donate/

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0