করোনাভাইরাসের ‘প্রতিষেধক’ বিক্রির অভিযোগে দুই ব্যক্তিকে দুই বছরের সশ্রম কারাদণ্ড দিয়েছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। ওই দুই ব্যক্তিকে ভুয়া চিকিৎসক বলে উল্লেখ করেছেন আদালত।

গতকাল বৃহস্পতিবার সন্ধ্যার দিকে কেন্দুয়ার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) আল-ইমরান রুহুল ইসলাম ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন।

সাজাপ্রাপ্ত দুজন হলেন ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জ উপজেলার মধুপুর গ্রামের রুবেল মিয়া (২৭) ও একই জেলার ফুলবাড়িয়া উপজেলার রাশেদুল ইসলাম (৩৫)।

স্থানীয় বাসিন্দা ও আদালত সূত্রে জানা গেছে, গতকাল সন্ধ্যা ছয়টার দিকে ওই দুই ব্যক্তি কেন্দুয়ার গন্ডা বাজারে মাইকিং করে করোনাভাইরাসের প্রতিষেধক ওষুধ বিক্রি করছিলেন। খবর পেয়ে ইউএনও আল-ইমরান রহুল ইসলাম ও কেন্দুয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. রাশেদুজ্জামান পুলিশ নিয়ে সেখানে গিয়ে উপস্থিত হন। পরে ইউএনও সেখানে ভ্রাম্যমাণ আদালত বসান। দুই ব্যক্তি দোষ স্বীকার করলে আদালত তাঁদের দুই বছরের সশ্রম কারাদণ্ড দেন।

ইউএনও বলেন, ‘মানুষকে প্রতারণা করে ওষুধ বিক্রির অভিযোগে ওই দুই ভুয়া চিকিৎসককে মেডিকেল ও ডেন্টাল কাউন্সিল আইন ২০১০-এর ২৯ ধারায় এই দণ্ড দেওয়া হয়েছে।’

কেন্দুয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. রাশেদুজ্জামান বলেন, সাজাপ্রাপ্ত ব্যক্তিদের আজ শুক্রবার সকালে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0