বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের স্বাস্থ্য অর্থনীতি ইনস্টিটিউট এবং জাতীয় ক্যানসার গবেষণা ইনস্টিটিউটের গবেষকেরা বলছেন, একটি গবেষণায় দেখা গেছে, বাংলাদেশে একজন ক্যানসার রোগীর চিকিৎসায় বছরে আনুমানিক ৬ লাখ ৩৯ হাজার টাকা ব্যয় হয়। এর মধ্যে আছে চিকিৎসকের পরামর্শ ফি, রোগনির্ণয়ে পরীক্ষা-নিরীক্ষা, অস্ত্রোপচার বা চিকিৎসা, ওষুধ, ইনজেকশন সামগ্রী, যাতায়াত, রোগী ও স্বজনদের থাকা-খাওয়ার খরচ।

প্রধান গবেষক ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের স্বাস্থ্য অর্থনীতি ইনস্টিটিউটের অধ্যাপক সৈয়দ আবদুল হামিদ প্রথম আলোকে বলেন, মূল চিকিৎসার বাইরে অন্য যে খরচ রোগী ও তার স্বজনদের করতে হয়, তা অনেক বেশি। ক্যানসার শনাক্ত করা বা পরীক্ষা-নিরীক্ষার জন্য মানুষকে নানা জায়গায় ঘুরতে হয়। অনেকে দালাল চক্রের পাল্লায় পড়েন। প্রতিটি ক্ষেত্রে পকেট থেকে অর্থ বের হয়ে যায়।

দেশে ক্যানসার চিকিৎসার খরচ কমানোর সহজ কোনো উপায় নেই। তবে বিশেষজ্ঞরা বলছেন, পরিকল্পিত ও সমন্বিত উদ্যোগ নিলে ক্যানসার চিকিৎসার ব্যয় সাধারণ মানুষের নাগালের মধ্যে আনা সম্ভব হতে পারে।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার অধিভুক্ত প্রতিষ্ঠান গ্লোবোক্যানের সর্বশেষ হিসাব বলছে, ২০২০ সালে বাংলাদেশে নতুনভাবে ক্যানসারে আক্রান্ত হয়েছেন ১ লাখ ৫৬ হাজার মানুষ। ওই একই সময়ে ক্যানসারে মারা গেছেন ১ লাখ ৯ হাজার মানুষ। অন্যদিকে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর বলছে, দেশে বছরে যত মানুষ মারা যান, তার ৬৭ শতাংশ ক্যানসার, হৃদ্‌রোগ, ডায়াবেটিস, উচ্চ রক্তচাপ, কিডনি রোগ, শ্বাসতন্ত্রের দীর্ঘস্থায়ী রোগের মতো অসংক্রামক রোগে আক্রান্ত।

এই পরিস্থিতিতে আজ বৃহস্পতিবার বিশ্ব ক্যানসার দিবস পালিত হচ্ছে। দিবসটির প্রতিপাদ্য: ‘আমি আছি আমি থাকব, ক্যানসারের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে।’ স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অসংক্রামক রোগ নিয়ন্ত্রণ শাখা থেকে বলা হয়েছে, দিবসটি উপলক্ষে সরকারি হাসপাতালে আজ র‌্যালি ও সভার আয়োজন করা হয়েছে।

চিকিৎসা খরচ

দেশের চারটি প্রধান হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে আসা সাত ধরনের ক্যানসার রোগীদের চিকিৎসা ও আনুষঙ্গিক খরচের হিসাব করেছেন গবেষকেরা। প্রতিটি হাসপাতাল থেকে কমপক্ষে ৩০ জন রোগীর তথ্য নেওয়া হয়েছে। মোট ২৬২ জনের সাক্ষাৎকার নিয়েছেন গবেষকেরা। হাসপাতালগুলো হচ্ছে: বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়, জাতীয় ক্যানসার গবেষণা ইনস্টিটিউট ও হাসপাতাল, ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল এবং আহ্ছানিয়া ক্যানসার ও জেনারেল হাসপাতাল। এই গবেষণার তথ্য ‘বাংলাদেশে ক্যানসার সেবায় অর্থায়ন: একটি বিকল্প পন্থা’ শিরোনামে প্রবন্ধ আকারে এ বছরের ১২ জানুয়ারি ইন্টারন্যাশনাল জার্নাল অব সোশ্যাল অ্যান্ড অ্যাডমিনিস্ট্রেটিভ সায়েন্সেস সাময়িকীতে ছাপা হয়েছে।

চিকিৎসক দেখানো, পরীক্ষা-নিরীক্ষা, অস্ত্রোপচার, ওষুধ—প্রতিটি ক্ষেত্রে অনেক বেশি টাকা খরচ করতে হয়। মধ্যবিত্তরাই এই খরচ চালাতে গিয়ে নিঃস্ব হয়ে যায়। দরিদ্ররা খরচের ভয়ে এই চিকিৎসা নেওয়া থেকে দূরে থাকে।

গবেষকেরা বলছেন, ক্যানসার ভেদে চিকিৎসা খরচে তারতম্য হয়। জরায়ুমুখ ক্যানসারে বছরে খরচ হয় গড়ে ৪ লাখ ৯২ হাজার টাকা। অন্যদিকে কোলন ক্যানসার বা বৃহদন্ত্রের ক্যানসারে খরচ হয় ৮ লাখ ১০ হাজার টাকা। এই খরচের মধ্যে আছে সরাসরি চিকিৎসা খরচ ও পরোক্ষ খরচ। তবে উত্তরদাতাদের কাছ থেকে সরাসরি ও পরোক্ষ ব্যয়ের আলাদা হিসাব নেওয়া সম্ভব হয়নি।

বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকেরা বলছেন, বাংলাদেশে ক্যানসার চিকিৎসায় সাধারণভাবে তিনটি চিকিৎসা পন্থা অবলম্বন করা হয়: অস্ত্রোপচার, কেমোথেরাপি ও রেডিওথেরাপি। ক্যানসার বিশেষজ্ঞরা গবেষকদের বলেছেন, সব সরকারি হাসপাতালে একবার রেডিওথেরাপির জন্য ২৫ হাজার, একবার কেমোথেরাপির জন্য ২০ হাজার এবং অস্ত্রোপচারে ৬০ হাজার টাকা খরচ হয়। বিশেষজ্ঞরা বলেছেন, ৫০ শতাংশ ক্যানসার রোগীর অস্ত্রোপচার, কেমোথেরাপি ও রেডিওথেরাপি—এই তিনটি পদ্ধতিরই দরকার হয়। ২০ শতাংশের দুটি পদ্ধতির দরকার হয়। বাকি ৩০ শতাংশের দরকার হয় অস্ত্রোপচার, কেমোথেরাপি ও রেডিওথেরাপির যেকোনো একটি পদ্ধতির। তবে এসব চিকিৎসা যদি বেসরকারি হাসপাতালে হয়, তা হলে খরচ আরও অনেক বেশি।

করণীয়

দেশে ক্যানসার চিকিৎসার খরচ কমানোর সহজ কোনো উপায় নেই। তবে বিশেষজ্ঞরা বলছেন, পরিকল্পিত ও সমন্বিত উদ্যোগ নিলে ক্যানসার চিকিৎসার ব্যয় সাধারণ মানুষের নাগালের মধ্যে আনা সম্ভব হতে পারে।

গবেষকেরা ক্যানসার চিকিৎসাকে বিমা ব্যবস্থার আওতায় আনার প্রস্তাব করেছেন। তাঁরা বিভিন্ন উৎস থেকে টাকা কীভাবে আসবে, তারও উদাহরণ দিয়েছেন।

কেউ বলছেন সাধারণ মানুষের মধ্যে ক্যানসার বিষয়ে সচেতনতা বাড়াতে হবে। মানুষ সচেতন হলে ক্যানসার থেকে দূরে থাকবে। এ জন্য ক্যানসার সচেতনতার ওপরেও জোর দিতে হবে।

স্কয়ার হাসপাতালের অনকোলজি বিভাগের প্রধান অধ্যাপক সৈয়দ আকরাম হোসেন বলেন, সরকারি প্রতিষ্ঠানে ক্যানসারের ওষুধ উৎপাদনের ব্যবস্থা করতে হবে। ক্যানসার চিকিৎসার অত্যাধুনিক যন্ত্র আমদানি কর কমালে তার সুবিধা পেতে পারেন রোগীরা।

বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন