বিজ্ঞাপন


জলবায়ু পরিবর্তন ছাড়া অন্য বিষয়ে আলোচনার ব্যাপারে জানতে চাইলে মাসুদ বিন মোমেন বলেন, ‘জন কেরি যেহেতু মার্কিন প্রেসিডেন্টের জলবায়ুবিষয়ক বিশেষ দূত, তাই দুই দেশের সম্পর্কের সব বিষয় নিয়ে আলোচনা হয়তো এবার হবে না। তবে প্রাসঙ্গিকভাবে কিছু বিষয় চলে আসবে। পরিবেশের প্রেক্ষাপট বিবেচনায় নিয়ে রোহিঙ্গা সমস্যা আলোচনায় আসতে পারে। রোহিঙ্গাদের কারণে আমাদের দেশের একটি অঞ্চলের পরিবেশের বিপর্যয় ঘটেছে।’

জলবায়ু পরিবর্তনের বিষয়ে মার্কিন প্রশাসনের অবস্থান সম্পর্কে জানতে চাইলে বাংলাদেশের পররাষ্ট্রসচিব বলেন, ‘আমরা যুক্তরাষ্ট্রের মনোভাবে বড় পরিবর্তন দেখতে পাচ্ছি। ডোনাল্ড ট্রাম্প প্যারিস চুক্তি থেকে ঘোষণা দিয়ে বের হয়ে গিয়েছিলেন। এ–সংক্রান্ত সব ধরনের আলোচনা থেকে তিনি নিজেকে সরিয়ে নিয়েছিলেন। কিন্তু জো বাইডেন দায়িত্ব নেওয়ার পর যুক্তরাষ্ট্রের অবস্থান পুরোপুরি উল্টো। সাধারণত আন্তর্জাতিক প্রক্রিয়ায় বহুপক্ষীয় সহযোগিতার ব্যাপারে যুক্তরাষ্ট্র সব সময় আস্থাশীল। সেই জায়গাতেই যুক্তরাষ্ট্র আবার ফিরে গেছে বলে দেখতে পাচ্ছি।’

বাংলাদেশের একাধিক কূটনীতিক গতকাল বুধবার এই প্রতিবেদককে জানান, জন কেরির ঢাকা সফরের সময় বাংলাদেশ, বিশেষ করে কয়েকটি বিষয় তুলতে পারে, যা মূলত জলবায়ু পরিবর্তনের অভিযোজনের সঙ্গে সম্পৃক্ত। যেমন ২০২০ সালের সেপ্টেম্বরে বাংলাদেশে দক্ষিণ এশিয়ায় জলবায়ু অভিযোজনবিষয়ক একটি কেন্দ্র প্রতিষ্ঠা করা হয়েছে। কেন্দ্রটির অর্থায়নে যুক্তরাষ্ট্রের সহযোগিতা চায় বাংলাদেশ। জন কেরির ঢাকা সফরের সময় কেন্দ্রের তহবিলে মার্কিন সহায়তার বিষয়টি বাংলাদেশ আলোচনায় তুলবে। জলবায়ু পরিবর্তনের ঝুঁকি মোকাবিলায় যুক্তরাষ্ট্র বিশ্বজুড়ে ১০০ বিলিয়ন ডলারের তহবিল গঠনের কথা বলছে। বাংলাদেশ চায়, ঝুঁকি মোকাবিলা ও অভিযোজন দুটি ক্ষেত্রেই অর্ধেক করে তহবিলের বরাদ্দ রাখা হোক। এ ছাড়া বাংলাদেশ সরকারের গড়া জলবায়ু ট্রাস্ট ফান্ডে যুক্তরাষ্ট্রের সহযোগিতা চাইতে পারে বাংলাদেশ।

চলতি বছরের নভেম্বরে যুক্তরাজ্যের গ্লাসগোতে অনুষ্ঠেয় ২৬তম জলবায়ু শীর্ষ সম্মেলনে যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে যৌথভাবে একটি অনুষ্ঠান আয়োজন করতে চায় বাংলাদেশ। জন কেরির ঢাকা সফরে বিষয়টি বাংলাদেশ আলোচনায় তুলবে বলে কূটনীতিক সূত্রে জানা গেছে। এ ছাড়া বর্জ্য ব্যবস্থাপনায় কারিগরি সহযোগিতা, সৌরবিদ্যুৎসহ নবায়নযোগ্য জ্বালানিতে যুক্তরাষ্ট্রের সহযোগিতা চাইতে পারে বাংলাদেশ।

বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন