অনুষ্ঠানে শুভেচ্ছা বক্তব্য দেন সংসদ সদস্য ও জেমকন গ্রুপের ভাইস চেয়ারম্যান কাজী নাবিল আহমেদ। তিনি বলেন, ‘আমরা ২০০০ সালে কাগজ সাহিত্য পুরস্কার প্রবর্তন করি। পরে ২০০৩ সাল থেকে তা জেমকন সাহিত্য পুরস্কার নামে দিয়ে আসছি। বাংলা সাহিত্যের সৃজনশীল লেখকদের সম্মানিত করার জন্যই মূলত এ পুরস্কার দেওয়া হয়। জেমকন সাহিত্য পুরস্কার সৃষ্টিশীল লেখকদের প্রেরণা জোগাবে বলে আমার বিশ্বাস।’

এ সময় মঞ্চে ছিলেন আসাম বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক অধ্যাপক তপোধীর ভট্টাচার্য, কবি মোহাম্মদ সাদিক, ভারতের উত্তরবঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক নিখিলেশ রায়, কলকাতার বিদ্যানগর কলেজের অধ্যাপক বনানী চক্রবর্তী, কথাশিল্পী আহমাদ মোস্তফা কামাল।‌

পুরস্কারপ্রাপ্তির অনুভূতি প্রকাশ করতে গিয়ে আফসানা বেগম বলেন, প্রত্যাশাহীন কর্তব্য পালনের জন্য যদি পুরস্কার পাওয়া যায়, তাহলে আনন্দের সীমা থাকে না।

অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন জেমকন সাহিত্য পুরস্কার পর্ষদের সদস্যসচিব কবি শামীম রেজা। ২০২০ সালের পুরস্কারপ্রাপ্ত সাহিত্যিকদের হাতেও মঙ্গলবার তুলে দেওয়া হয় পুরস্কার। করোনা মহামারির কারণে সে সময় শুধু পুরস্কৃত ব্যক্তিদের নাম ঘোষণা করা হয়েছিল। পুরস্কারপ্রাপ্ত ব্যক্তিরা হলেন সাহিত্যে মাসরুর আরেফিন, তরুণ কথাসাহিত্যে যৌথভাবে জব্বার আল নাঈম ও ধ্রুপদি রিপন এবং কবিতায় হাসনাইন হীরা।

বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন