বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

আগামী ২ নভেম্বর বিজয়ীদের নাম ঘোষণা করা হবে। সাহসী সাংবাদিক ক্যাটাগরিতে বিজয়ীকে দেওয়া হবে ৭ হাজার ৫০০ ইউরো। সেরা নবাগত সাংবাদিক ক্যাটাগরিতে বিজয়ী পাবেন ১ হাজার ৫০০ ইউরো।

এ বছরের সেরা নবাগত সাংবাদিক ক্যাটাগরিতে মনোনীত হয়েছেন ভারতের ভাট বুরহান, মিয়ানমারের আয়ে মিনত থানত ও অ্যাঙ্গোলার ইসরায়েল গ্রাসা ক্যাম্পোস। এই সাংবাদিকেরা প্রতিকূল পরিবেশের মধ্যেও কাজ করে জনসাধারণের জন্য দুর্দান্ত প্রেরণা ও প্রতিভার নজির সৃষ্টি করেছেন।

মনোনয়ন বোর্ডের সদস্যরা বলছেন, বিশ্বজুড়ে সাংবাদিকেরা কয়েক বছর ধরে যেসব বিপদের মধ্যেও লড়াই করেছেন, তারই প্রতিনিধিত্ব করেন সাহসী সাংবাদিকের ক্যাটাগরিতে মনোনীত হওয়া তিন সাংবাদিক। তাঁরা দৃঢ়তা ও সাহসিকতার মধ্য দিয়ে সামনে এগিয়ে গেছেন। এই তিনজনই তাঁদের কাজের জন্য হামলার শিকার হয়েছেন।
পেশাগত দায়িত্ব পালন করতে গিয়ে গত মে মাসে সচিবালয়ে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের একটি কক্ষে প্রায় ছয় ঘণ্টা হেনস্তার শিকার হন সাংবাদিক রোজিনা ইসলাম। পরে তাঁর বিরুদ্ধে অফিশিয়াল সিক্রেটস অ্যাক্টে মামলা করা হয়। ওই মামলায় গ্রেপ্তারের পর রোজিনা ইসলামকে কারাগারে পাঠান আদালত। পরে জামিনে মুক্ত হন তিনি। কিন্তু তাঁর পাসপোর্ট ও প্রেসকার্ড জব্দ করেছে পুলিশ।

ফ্রি প্রেস আনলিমিটেডের দেওয়া তথ্যমতে, সাহসী সাংবাদিকের ক্যাটাগরিতে মনোনয়ন পাওয়া মরক্কোর ওমর রাদি এক দশকের বেশি সময় ধরে প্রতিবেদক হিসেবে কাজ করছেন। দেশটির সামাজিক ও অর্থনৈতিক অসমতা নিয়ে অনেক কেলেঙ্কারির প্রতিবেদন প্রকাশ করেছেন তিনি। জনগণকে সেবা দিতে সরকারের অস্বীকৃতি ও বৈষম্য নিয়ে প্রশ্ন তোলায় তাঁকে গ্রেপ্তার করা হয়। লোক দেখানো বিচারের মাধ্যমে তাঁর ছয় বছরের সাজা হয়েছে। বর্তমানে তিনি কারাগারে।

বেলারুশের রামান ভাসিউকভিচ দেশটির কারেন্ট টাইম টেলিভিশন চ্যানেলের সাংবাদিক। গত বছর বেলারুশের ব্যাপক কারচুপি হওয়া নির্বাচন নিয়ে তথ্যচিত্র প্রকাশ করেছেন তিনি। মারধর, গ্রেপ্তার, নির্যাতন এবং সহিংসভাবে দেশবাসীকে আক্রমণ করার ছবি প্রকাশ করায় তাঁকে নির্বাসনে বাধ্য করা হয়েছিল। ইউক্রেনে নির্বাসনে গিয়েও নিজের কাজ অব্যাহত রেখেছেন রামান।

বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন