আজ সোমবার সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের এক প্রজ্ঞাপনে বলা হয়েছে, ‘শুধু পদ্মা সেতুর উদ্বোধনের দিন আগত অতিথিদের বহনকারী ও সাধারণ যানবাহনের জন্য জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মহাসড়কের তিনটি সেতুর টোল মওকফ করা হয়েছে। ওই দিন যানবাহনের চলাচল যানজটবিহীন ও নির্বিঘ্ন করার লক্ষ্যেই এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।’

২৫ জুন সকাল ১০টায় পদ্মা সেতুর মাওয়া প্রান্তে প্রথমে সুধীসমাবেশে অংশ নেবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এরপর তিনি টোল দিয়ে সেতুতে উঠে সেখানে থাকা উদ্বোধনী ফলক উন্মোচন করবেন। এরপর তিনি গাড়ি দিয়ে সেতু পার হয়ে জাজিরায় আরেকটি ফলক উন্মোচন করবেন। বিকেলে মাদারীপুরের শিবচরে জনসভায় অংশ নেবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

পদ্মা সেতুর উদ্বোধনকে স্মরণীয় করে রাখতে সারা দেশেই উদ্‌যাপনের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। জেলায় জেলায় পদ্মা সেতুর উদ্বোধনী অনুষ্ঠান প্রচার, আতশবাজি ফোটানো এবং সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান আয়োজনের পরিকল্পনা আছে সরকারের।

পদ্মা সেতু চালু হলে ৬ মিনিটে সেতুটি যানবাহনে পাড়ি দেওয়া যাবে বলে জানিয়েছেন সেতু বিভাগের কর্মকর্তারা। এখন ফেরিতে নদী পাড়ি দিতে দুই ঘণ্টার মতো সময় লাগে। ঈদ, উৎসব কিংবা বৈরী আবহাওয়ায় ঘণ্টার পর ঘণ্টা ফেরিঘাটে অপেক্ষায় থাকতে হয়। সেতুটি চালু হলে দেশের দক্ষিণ ও দক্ষিণ–পশ্চিমাঞ্চলের সঙ্গে ঢাকাসহ সারা দেশের যোগাযোগ সহজ হবে। যাত্রী ও মালামাল পরিবহন দ্রুত হবে।

বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন