বিজ্ঞাপন

আজ মঙ্গলবার সকালে রোজিনা ইসলামকে আদালতে নেওয়া হয়। তাঁকে রিমান্ডে নিতে পুলিশের করা আবেদন নাকচ করেন আদালত। পাশাপাশি তাঁকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেওয়া হয়। তাঁর জামিন আবেদনের অধিকতর শুনানির জন্য আগামী বৃহস্পতিবার দিন ধার্য করেছেন আদালত।

রোজিনা ইসলাম সাম্প্রতিক কালে স্বাস্থ্য খাতে দুর্নীতি, অনিয়ম ও অব্যবস্থাপনা নিয়ে বেশ কিছু প্রতিবেদন করেছেন। এ কারণে তিনি কারও কারও আক্রোশের শিকার হয়েছেন বলে মনে করা হচ্ছে। তাঁকে হেনস্তা ও হয়রানির প্রতিবাদে সাংবাদিক ও বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ বিক্ষোভ, প্রতিবাদ ও নিন্দা জানানো অব্যাহত রেখেছেন। দেশি-বিদেশি বিভিন্ন সংগঠন বিবৃতি দিয়ে তাঁর মুক্তি দাবি করেছে।

রোজিনা ইসলামকে হেনস্তা ও মামলা দিয়ে হয়রানির প্রতিবাদে এবং তাঁর মুক্তির দাবিতে প্রথম আলোর মানববন্ধনে এর কর্মীরা স্বাস্থ্যবিধি মেনে অংশ নেবেন। দেশের অন্যান্য পত্রিকা, টেলিভিশন ও অনলাইন সংবাদমাধ্যমকে কর্মসূচিটির সংবাদ সংগ্রহের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য অনুরোধ জানিয়েছেন প্রথম আলোর ব্যবস্থাপনা সম্পাদক সাজ্জাদ শরিফ।

বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন