শিক্ষা মন্ত্রণালয় গত বুধবার তাদের অধীন দপ্তরপ্রধানদের কাছে চিঠি দিয়ে এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে বলেছে।

জানা গেছে, গত ২১ এপ্রিল প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় থেকে মন্ত্রিপরিষদ সচিবসহ সব মন্ত্রণালয়ের সচিবদের চিঠি দিয়ে এ বিষয়ে সতর্ক করা হয়। চিঠিতে বলা হয়, সম্প্রতি দেখা যাচ্ছে, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, তাঁর বোন শেখ রেহানা এবং তাঁদের সন্তানদের নাম ব্যবহার করে অবৈধভাবে সরকারি কাজ এবং অনুরূপ সুবিধা পাওয়ার চেষ্টা করা হচ্ছে। প্রধানমন্ত্রী ও তাঁর পরিবারের সদস্যদের নাম অনৈতিকভাবে ব্যবহার করে অনেকে অবৈধ অর্থ লেনদেনের সঙ্গে যুক্ত হচ্ছেন।

সবাইকে জানানো যাচ্ছে, প্রধানমন্ত্রী ও বঙ্গবন্ধু পরিবারের কোনো সদস্য কোনো প্রকার ব্যবসা বা অনুরূপ কোনো তদবিরের সঙ্গে সম্পৃক্ত নন। প্রধানমন্ত্রী ও বঙ্গবন্ধু পরিবারের কোনো সদস্যের নাম ব্যবহার করে এ ধরনের প্রতারণার চেষ্টা করা হলে তাঁদের বিরুদ্ধে কঠোর আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে। এ ধরনের কোনো অনুরোধ বা তদবির বা অবৈধ সুবিধাভোগের চেষ্টা চোখে পড়লে প্রতারকদের বিষয়ে প্রধানমন্ত্রীর একান্ত সচিব-১ মোহাম্মদ সালাহ উদ্দিন ও একান্ত সচিব-২ মনিরা বেগম এবং সহকারী একান্ত সচিব-১ ইসমাত মাহমুদের কাছে তথ্য দিতে বলা হয় ওই চিঠিতে।

বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন