বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

ফ্রিডম হাউসের এবারের প্রতিবেদনে গত ১০ বছরে অবনতি হয়েছে এমন দেশের একটি তালিকা করেছে। ওই তালিকায় বাংলাদেশের নাম রয়েছে।

ফ্রিডম হাউসের প্রতিবেদনে ‘মোটেও স্বাধীন নয়’, ‘আংশিক স্বাধীন’ ও ‘স্বাধীন’ এই তিনটি শ্রেণিতে বিশ্বের বিভিন্ন দেশ ও অঞ্চলের রাজনৈতিক অধিকার চর্চা ও নাগরিক স্বাধীনতা মানদণ্ড নির্ধারণ করে থাকে। যেসব দেশ ও অঞ্চলের স্কোর ১ থেকে ৩৪–এর মধ্যে, তাদের ‘মোটেও স্বাধীন নয়’, ৩৫ থেকে ৭১ হলে তাদের ‘আংশিক স্বাধীন’ এবং ৭২–এর বেশি হলে তাদের ‘স্বাধীন’ হিসেবে প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে।

২১০টি দেশ ও অঞ্চলের অবস্থান ফ্রিডম হাউসের প্রতিবেদনে উঠে এসেছে। এর মধ্যে ৮৪টি দেশ ও অঞ্চলে রাজনৈতিক অধিকার চর্চা ও নাগরিক স্বাধীনতা রয়েছে। ৬০টি দেশ ও অঞ্চলে এই স্বাধীনতার অবস্থা ‘আংশিক স্বাধীন’ এবং ৬৬টি দেশ ও অঞ্চল ‘মোটেও স্বাধীন নয়’ বলা হয়েছে।

২০২১ সালে বাংলাদেশের মোট স্কোর দাঁড়িয়েছে ১০০–এর মধ্যে ৩৯। এর মধ্যে রাজনৈতিক অধিকারের ৪০ নম্বরের মধ্যে বাংলাদেশ ১৫ এবং নাগরিক স্বাধীনতায় ৬০–এর মধ্যে ২৪ পেয়েছে বলে প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়।

ফ্রিডম হাউস বৈশ্বিক স্বাধীনতা মূল্যায়নের ক্ষেত্রে রাজনৈতিক অধিকার এবং নাগরিক স্বাধীনতাকে বিবেচনায় নেয়। রাজনৈতিক অধিকারের মধ্যে রয়েছে নির্বাচনী ব্যবস্থা ও স্বচ্ছতা, রাজনৈতিক বহুত্ববাদ ও রাজনীতিতে অংশগ্রহণের সুযোগ, সরকারের কার্যকারিতা, নীতিনির্ধারণী ব্যবস্থা, ক্ষমতার ব্যবহার ও স্বচ্ছতা–সম্পর্কিত নানা বিষয়।
অন্যদিকে নাগরিক স্বাধীনতার মধ্যে রয়েছে মতপ্রকাশের স্বাধীনতা ও বিশ্বাস, মানবাধিকার সংস্থাসহ সরকারি ও বেসরকারি সংস্থাগুলোর ভূমিকা, আইনের শাসন ও বিচারব্যবস্থা, ব্যক্তিস্বাধীনতা।

বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন