default-image

জোর জবরদস্তি নয়, ব্যবসায়ীদের সঙ্গে সুসম্পর্ক রেখে নিত্য পণ্যের বাজার নিয়ন্ত্রণে রাখার পরামর্শ দিয়েছে বাণিজ্য মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় কমিটি। আজ মঙ্গলবার জাতীয় সংসদে অনুষ্ঠিত কমিটির বৈঠকে এই পরামর্শ দেওয়া হয়।

বৈঠক শেষে সংসদ সচিবালয়ের এক বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, আলু, পেঁয়াজসহ নিত্য প্রয়োজনীয় ভোগ্যপণ্যের বাজার স্থিতিশীল রাখতে আগেভাগে চাহিদা নির্ধারণ করতে হবে। সে অনুযায়ী পণ্য মজুত রাখার পরামর্শ দিয়েছে সংসদীয় কমিটি। এ ক্ষেত্রে কোনো পণ্যে চাহিদা কত তা অন্তত পাঁচ-ছয় মাস আগে নির্ধারণ করে সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে আলোচনা পর আমদানির উদ্যোগ নিতে হবে।

বিজ্ঞাপন

এ ছাড়া নিত্যপণ্যের বাজার অস্থিতিশীল হলে তা মোকাবিলায় অর্থ, বাণিজ্য, কৃষি ও খাদ্যসহ সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের সমন্বয়ে বৈঠক করে সমস্যা চিহ্নিত করা এবং পদক্ষেপ নেওয়ার জন্য কমিটি সুপারিশ করেছে।

কমিটির সভাপতি তোফায়েল আহমেদ প্রথম আলোকে বলেন, আলু উৎপাদনে বাংলাদেশ স্বয়ংসম্পূর্ণ। আলুর দাম বাড়ার কারণ নেই। বৈঠকে তিনি বলেছেন, ব্যবসায়ীদের সঙ্গে জোর জবরদস্তি করে বাজার নিয়ন্ত্রণ করা যায় না। তাঁদের সঙ্গে সুসম্পর্ক রেখে বাজার নিয়ন্ত্রণ করতে হবে।

সাবেক বাণিজ্যমন্ত্রী হিসেবে নিজের অভিজ্ঞতা তুলে ধরে তোফায়েল আহমেদ জানান, তাঁর সময়ে ছয় মাস আগে পণ্য মজুতের উদ্যোগ গ্রহণ করতেন। আমদানিকারক, পাইকারি ও খুচরা ব্যবসায়ীসহ সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে বৈঠক করে চাহিদা নিরূপণ করা হতো। এরপর প্রয়োজনীয় পণ্য আমদানির জন্য আমদানিকারকদের অনুরোধ করা হতো। তাঁরা আমদানি করতেন।

বৈঠকে টিসিবির পক্ষ থেকে জানানো হয়, আলুর দাম অস্বাভাবিকভাবে বেড়ে যাওয়ার পর ২১ অক্টোবর থেকে নিজস্ব ডিলারের মাধ্যমে ২৫ টাকা কেজিতে আলু বিক্রি শুরু হয়েছে। আর পেঁয়াজের বাজার স্থিতিশীল রাখতে সেপ্টেম্বর মাস থেকে তারা খোলাবাজারে পেঁয়াজ বিক্রি শুরু করেছে। চলতি অর্থবছরে দেড় লাখ টন পেঁয়াজ কিনে তা বিক্রয় পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে। পরিকল্পনা অনুযায়ী আন্তর্জাতিক বাজার থেকে পেঁয়াজ কেনার কার্যক্রম অব্যাহত রয়েছে।

তোফায়েল আহমেদের সভাপতিত্বে বৈঠকে কমিটির সদস্য বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি, মাহমুদ উস সামাদ চৌধুরী, তাহজীব আলম সিদ্দিকী, সেলিম আলতাফ ও সুলতানা নাদিরা অংশ নেন।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0