বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

সোমবার অনলাইনে আয়োজিত ‘ফার্স্ট এশিয়া গ্রিন গ্রোথ পার্টনারশিপ মিনিস্ট্রিয়াল মিটিং’–এ অংশ নিয়ে এসব কথা বলেন বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী। তিনি বলেন, ৬০ লাখ সোলার হোম সিস্টেমের মাধ্যমে দুই কোটি গ্রামীণ গ্রাহকদের বিদ্যুতায়নের আওতায় আনা হয়েছে। ছাদ সৌরবিদ্যুৎ জনপ্রিয় করার জন্য নেট মিটারিং গাইডলাইন তৈরি করা হয়েছে। সেচকাজের জন্য সোলার পাম্প ব্যবহৃত হচ্ছে।

প্রতিমন্ত্রী আরও বলেন, নেপাল ও ভুটান হয়ে জলবিদ্যুৎ আমদানি করার কাজও চলমান রয়েছে। নবায়নযোগ্য জ্বালানি ও ক্লিন জ্বালানির অংশ বাড়াতে পাওয়ার সিস্টেম মাস্টারপ্ল্যান হালনাগাদ করা হচ্ছে।

জাপানের অর্থনীতি, বাণিজ্য ও শিল্পমন্ত্রী হিরোশি কাজিয়ামার সভাপতিত্বে ভার্চ্যুয়াল এই অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য দেন সৌদি আরবের জ্বালানিমন্ত্রী প্রিন্স আবদুল আজিজ বিন সালমান বিন আবদুল আজিজ আল সৌদ, সংযুক্ত আরব আমিরাতের বাণিজ্য ও প্রযুক্তিমন্ত্রী সুলতান আহমেদ আল জাবের, ইন্দোনেশিয়ার জ্বালানি ও খনিজ সম্পদমন্ত্রী আরেফিন তাসরিফ ও ইন্টারন্যাশনাল এনার্জি এজেন্সির নির্বাহী পরিচালক ফাতিহ্ বিরল।

বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন