বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

শাজাহান খান এ সময় বলেন, সাংবাদিকেরা বলছেন, বিভিন্ন লোক বলছেন, পরিবহন ধর্মঘট। ধর্মঘট ডাকতে হলে একটা নোটিশ দিতে হয়। কী কারণে ধর্মঘটের দাবি উত্থাপন করতে হয়, সেটা কেউ বলেনি। সুতরাং এটাকে ধর্মঘট বলা যাবে না।
গত শুক্রবার থেকে চলমান পরিবহন ধর্মঘটের প্রেক্ষাপট নিয়ে শাজাহান খান সাংবাদিকদের ব্যাখ্যা দিতে গিয়ে বলেন, ‘ব্যবসায়িকভাবে যদি কেউ ক্ষতিগ্রস্ত হন, তিনি দোকানদার হতে পারেন, শিল্পপতি হতে পারেন, তিনি ইন্ডাস্ট্রির মালিক হতে পারেন। যদি কেউ মনে করেন, আমি এই ইন্ডাস্ট্রি চালাতে পারছি না, আমার লোকসান হচ্ছে, সেই জায়গায় তিনি ব্যবসাটা বন্ধ করে দিতে পারেন। সেই দিক বিবেচনা করে এখন যে তেলের দাম ১৫ টাকা লিটারপ্রতি বেড়েছে, মালিকদের হিসাবটা যে তাঁরা দেখেছেন, এই টাকায় তেল কিনে হয়তো লাভ করতে পারবেন না। লাভ না করলে তাঁরা তো পকেটের পয়সা দিয়ে গাড়ি চালাবেন না।’

default-image

শাজাহান খান আশা প্রকাশ করে বলেন, সরকারের এই বিষয় নিয়ে রোববার (আজ) আলোচনা আছে। একটি সমাধানের ব্যাপারে আশাবাদ ব্যক্ত করেন তিনি।

বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সংসদ চুয়াডাঙ্গা জেলা ইউনিটের সাবেক কমান্ডার আবু হোসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত মুক্তিযোদ্ধা সমাবেশে শাজাহান খান ছাড়া বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক ওসমান আলীও উপস্থিত ছিলেন।

বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন