বিজ্ঞাপন

বিবৃতিতে বলা হয়, রোজিনা ইসলাম দুর্নীতিবিষয়ক প্রতিবেদন করার জন্য পরিচিত। সাম্প্রতিক সময়ে তিনি স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়সংশ্লিষ্ট দুর্নীতি এবং করোনাভাইরাসের মহামারি মোকাবিলায় চিকিৎসা সরঞ্জাম কেনাকাটায় দুর্নীতি নিয়ে লিখছিলেন। রোজিনা ইসলামের পরিবার অভিযোগ করেছে, স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের একটি কক্ষে আটকে রেখে তাঁকে প্রথমে শারীরিক ও মানসিকভাবে হেনস্তা করা হয়। পরে তাঁর বিরুদ্ধে মামলা করা হয়।

বিবৃতিতে রোজিনা ইসলামের গ্রেপ্তারের প্রতিবাদে বাংলাদেশজুড়ে সাংবাদিকদের বিক্ষোভের কথা বলা হয়। একই সঙ্গে বাংলাদেশ সেক্রেটারিয়েট রিপোর্টার্স ফোরাম (বিএসআরএফ) এবং বাংলাদেশ হেলথ রিপোর্টার্স ফোরামের (বিএইচআরএফ) স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের সংবাদ ব্রিফিং বর্জনের ঘটনারও উল্লেখ করা হয়।

আইপিআই জানায়, সংগঠনটির কোভিড–১৯ প্রেস ফ্রিডম ট্র্যাকারের তথ্যমতে, দক্ষিণ এশিয়ার চার দেশ বাংলাদেশ, ভারত, পাকিস্তান ও নেপালে করোনাকালে সংবাদমাধ্যমের স্বাধীনতায় হস্তক্ষেপের শতাধিক ঘটনা ঘটেছে। এর মধ্যে বাংলাদেশে ঘটেছে ১২টি ঘটনা।

বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন