বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

ইউজিসির দেওয়া নির্দেশনায় বলা হয়, যাঁদের জাতীয় পরিচয়পত্র (এনআইডি) নেই, তাঁরা জন্মনিবন্ধন সনদের তথ্য ব্যবহার করে ইউজিসির ওয়েবলিংকে প্রাথমিক নিবন্ধন করে সুরক্ষা সেবা ওয়েব পোর্টাল বা অ্যাপে টিকার জন্য নিবন্ধন করতে হবে।

পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়গুলো খোলার সিদ্ধান্তের সঙ্গে মিল রেখেই এসব শর্ত দেওয়া হয়েছে। পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়গুলোও টিকার নিবন্ধন করা সাপেক্ষে ২৭ সেপ্টেম্বরের পর খুলতে পারবে বলে সরকারের তরফ থেকে জানানো হয়েছে। উচ্চশিক্ষায় পড়ুয়া যেসব শিক্ষার্থীর এনআইডি নেই, তাঁদের জন্য বিশেষ ব্যবস্থায় জন্মসনদের ভিত্তিতে করোনার টিকার নিবন্ধন করা যাচ্ছে। এ জন্য প্রথমে ইউজিসির চালু করা ওয়েবলিংকে প্রাথমিক নিবন্ধন করতে হচ্ছে। এরপর এসব তথ্য স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হলে শিক্ষার্থীরা সহজেই টিকার জন্য নিবন্ধন করতে পারবেন।

বর্তমানে দেশে ১০৮টি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় এবং ৫১টি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় রয়েছে। করোনাভাইরাসের সংক্রমণ পরিস্থিতির কারণে গত বছরের ১৭ মার্চ থেকে বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে সশরীর ক্লাস বন্ধ আছে। ১২ সেপ্টেম্বর থেকে প্রাথমিক থেকে উচ্চমাধ্যমিক স্তর পর্যন্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়া হয়েছে। ১৩ সেপ্টেম্বর থেকে মেডিকেল কলেজগুলোও খুলে দেওয়া হয়েছে। এখন বিশ্ববিদ্যালয়গুলো খোলার প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে।

বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন