বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের ওই চিঠিতে বলা হয়, স্বাস্থ্য অধিদপ্তর এই সাত প্রতিষ্ঠানের নাম প্রস্তাব করেছে। আর এই সাত প্রতিষ্ঠানকে অনুমোদন দিয়েছে প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়।

সাতটি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে স্টেমজ হেলথ কেয়ার তিন দিনের মধ্যে বিমানবন্দরে পরীক্ষাগার স্থাপন করতে পারবে বলে মন্ত্রণালয়কে জানিয়েছে। বিমানবন্দরে বহির্গামী যাত্রীরা এখানে করোনার নমুনা পরীক্ষা করতে পারবেন দুই হাজার টাকা খরচে। সিএসবিএফ হেলথ সেন্টারের ল্যাব স্থাপনে সময় লাগবে পাঁচ দিন, নমুনা পরীক্ষার খরচ নিবে এক হাজার ৮৫০ টাকা।

চিঠিতে আরও জানানো হয়, এএমজেড হাসপাতাল পাঁচ দিনে পরীক্ষাগার স্থাপন করতে পারবে, নমুনা পরীক্ষায় খরচ নেবে এক হাজার ৮০০ টাকা। আনোয়ার খান মডার্ন মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল চার দিনে পরীক্ষাগার স্থাপন করতে পারবে, নমুনা পরীক্ষার খরচ নেবে ২ হাজার টাকা।

জয়নুল হক সিকদার ওমেন্স মেডিকেল কলেজ পরীক্ষাগার স্থাপন করতে ছয় দিন চেয়েছে এবং খরচ চেয়েছে ১ হাজার ৭০০ টাকা। পাঁচ দিনে পরীক্ষাগার স্থাপন করতে পারবে বলে জানিয়েছে গুলশান ক্লিনিক, যাদের নমুনা পরীক্ষার খরচ এক হাজার ৭৫০ টাকা। আর ডিএমএফআর পরীক্ষাগার স্থাপন করতে সময় চেয়েছে চার দিন, যেখানে নমুনা পরীক্ষার খরচ দুই হাজার ৩০০ টাকা।

চিঠিতে এই সাত নির্বাচিত পরীক্ষাগারকে হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে নির্ধারিত সময়ের মধ্যে স্ট্যান্ডার্ড অপারেশন প্রসিডিউরের (এসওপি) আলোকে পরীক্ষাগার স্থাপনের প্রয়োজনীয় স্থান বরাদ্দসহ আনুষঙ্গিক ব্যবস্থা নিতে বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যানকে নির্দেশক্রমে অনুরোধ জানিয়েছে প্রবাসী কল্যাণ। পাশাপাশি সংশ্লিষ্ট আইন ও বিধি-বিধান মেনে উপযুক্ত পরীক্ষাগার শুরুর নির্দেশ জারি করতে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালককে প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রণালয় নির্দেশক্রমে অনুরোধ জানিয়েছে।

বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন