default-image

কথাসাহিত্যিক শাহীন আখতার এ বছর এশিয়া লিটারারি অ্যাওয়ার্ড পেয়েছেন। তিনি তাঁর ‘তালাশ’ উপন্যাসের জন্য এ পুরস্কার পেয়েছেন।


১ নভেম্বর এশিয়া লিটারারি অ্যাওয়ার্ড ঘোষণা করা হয়। দক্ষিণ কোরিয়ার গোয়াংজু শহরে ২৯ অক্টোবর থেকে ১ নভেম্বর পর্যন্ত ‘এশিয়া লিটারেচার ফেস্টিভ্যাল’ অনুষ্ঠিত হয়। করোনাভাইরাস মহামারির কারণে এই সাহিত্য উৎসব অফলাইন ও অনলাইনে অনুষ্ঠিত হয়। এতে এশিয়ার ২৯ জন লেখক অংশ নেন। তাঁদের মধ্যে ম্যান বুকার পুরস্কারপ্রাপ্ত সাহিত্যিক হান কাংসহ কোরিয়ার ১৯ জন লেখক ছিলেন।


২০১৭ সাল থেকে এশিয়া লিটারেচার ফেস্টিভ্যাল অনুষ্ঠিত হয়ে আসছে। এই আয়োজনের অন্যতম অংশ হচ্ছে ‘এশিয়া লিটারারি অ্যাওয়ার্ড’ প্রদান। পুরস্কারটি দেওয়া হয় এশিয়ান লেখকদের, যাঁরা দেশীয় ভাষায় লিখে থাকেন। প্রথমবার এ পুরস্কার পেয়েছেন মঙ্গোলিয়ার কবি মি. ইউরিয়ানখাই ডামডিনসুরেন। দ্বিতীয়বারের অর্জনকারী ভিয়েতনামের লেখক মি. বাউ নিন। আর তৃতীয়বার পেলেন বাংলাদেশের লেখিকা শাহীন আখতার। এশিয়া লিটারারি অ্যাওয়ার্ডের অর্থমূল্য ১৭ হাজার ৫০০ ডলার।

বিজ্ঞাপন

শাহীন আখতারের ‘তালাশ’ উপন্যাস প্রকাশিত হয়েছে মাওলা ব্রাদার্স থেকে, ২০০৪ সালে। একই বছরে প্রথম আলো বর্ষসেরা বই হিসেবে তালাশ পুরস্কৃত হয়। ২০১১ সালে ‘দ্য সার্চ’ নামে তালাশ-এর ইংরেজি অনুবাদ প্রকাশ করে দিল্লির প্রকাশনা হাউস জুবান। তালাশ কোরিয়ান ভাষায় অনুবাদ করেছেন অধ্যাপক সিং হি জন। বইটি কোরিয়া থেকে প্রকাশিত হয় ২০১৮ সালে।


কুমিল্লা জেলার চান্দিনা থানার হারং গ্রামে ১৯৬২ সালে জন্মগ্রহণ করেন শাহীন আখতার। অর্থনীতি নিয়ে তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশোনা করেছেন। গল্প, উপন্যাস লেখার পাশাপাশি কয়েকটি সাহিত্য সংকলন সম্পাদনা করেছেন তিনি।
শাহীন আখতার বাংলা সাহিত্যে অবদানস্বরূপ বাংলা একাডেমি সাহিত্য পুরস্কার, আখতারুজ্জামান ইলিয়াস কথাসাহিত্য পুরস্কার ও আইএফআইসি ব্যাংক পুরস্কার, জেমকন সাহিত্য পুরস্কার, এবিপি আনন্দ থেকে ‘সাহিত্যে সেরা বাঙালি’ সম্মাননা পেয়েছেন।

মন্তব্য পড়ুন 0