পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে রাকিব, মারুফসহ কয়েকজন শিশু-কিশোর মীরগঞ্জ (থানাঘাট) এলাকার একটি মাঠে ফুটবল খেলে। খেলা শেষে বারাকপাড়া এলাকার সুজন আলীর ছেলে মারুফ (৮) মীরগঞ্জ (থানা ঘাট) এলাকার মৃগী নদীর পাড়ে গোসল করতে গিয়ে নদীর গভীর পানিতে চলে যায়। এ সময় রাকিব খেলার সাথি মারুফকে বাঁচাতে নদীতে ঝাঁপ দেয়। কিন্তু পানির স্রোতে সে (রাকিব) নিজেই নদীর গভীর পানিতে ডুবে যায়। এ সময় স্থানীয় লোকজন ও স্বজনেরা দ্রুত নদীতে নেমে মারুফকে উদ্ধার করে। পরে দীর্ঘ সময় খোঁজাখুঁজি করার পর স্থানীয় লোকজন শনিবার বেলা দুইটার দিকে রাকিবকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় নদী থেকে উদ্ধার করে। পরে জেলা সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

সদর থানার উপপরিদর্শক (এসআই) আবদুল্লাহ আল মাহমুদ শনিবার বিকেলে প্রথম আলোকে বলেন, এ ঘটনায় মৃত রাকিবের মামা শফিকুল ইসলাম বাদী হয়ে সদর থানায় অপমৃত্যুর মামলা করেছেন। পরিবারের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে লাশ ময়নাতদন্ত ছাড়াই হস্তান্তরের প্রক্রিয়া চলছে।

রাকিবের প্রতিবেশী বারাকপাড়া গ্রামের ব্যবসায়ী মো. মামুন মিয়া প্রথম আলোকে বলেন, রাকিব তিন ভাইবোনের মধ্যে দ্বিতীয় ছিল। সে পঞ্চম শ্রেণি পর্যন্ত পড়ালেখা করেছে। ছোটবেলায় বাবার মৃত্যুর পর সে শ্রমিকের কাজ করত। রাকিবের অকালমৃত্যুতে এলাকায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে।