বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

সিপিজের ওয়েবসাইটে আজ বৃহস্পতিবার এক প্রতিবেদনে এ তথ্য প্রকাশ করা হয়। এতে দেখা যায়, সাংবাদিক হত্যার বিচার না হওয়া দেশগুলোর তালিকায় শীর্ষে রয়েছে আফ্রিকার দেশ সোমালিয়া। সোমালিয়ার পরে রয়েছে যথাক্রমে সিরিয়া, ইরাক, দক্ষিণ সুদান, আফগানিস্তান, মেক্সিকো, ফিলিপাইন, ব্রাজিল, পাকিস্তান ও রাশিয়া। তালিকায় ১১ নম্বরে থাকা বাংলাদেশের পরেই রয়েছে ভারত। বাংলাদেশে গত এক দশকে ছয় সাংবাদিক খুনের বিচার ঝুলে রয়েছে। আর ভারতে রয়েছে ২০টি।

২০১১ সালের ১ সেপ্টেম্বর থেকে ২০২১ সালের ৩১ আগস্ট পর্যন্ত ১০ বছরে বিশ্বজুড়ে সাংবাদিক হত্যা এবং এসব হত্যা মামলা নিষ্পত্তি না হওয়ার তথ্য বিশ্লেষণ করে ওই সূচক তৈরি করা হয়েছে। সূচক তৈরির ক্ষেত্রে একটি দেশের জনসংখ্যার হার অনুযায়ী বিচার না হওয়ায় অনুপাতকে বিবেচনায় নেওয়া হয়েছে।

সিপিজে বলেছে, পেশাগত দায়িত্ব পালনের জন্য ২০২০ সালে বিশ্বে অন্তত ২২ জন সাংবাদিক খুন হওয়ার তথ্য পাওয়া যায়, যা আগের বছরের চেয়ে দ্বিগুণ। চলতি বছর সাংবাদিক খুনের সংখ্যা প্রায় গত বছরের সমান। তবে রাজনৈতিক অস্থিতিশীলতার কারণে আফগানিস্তান ও অন্যান্য দেশে সাংবাদিক হত্যার প্রকৃত সংখ্যা নিশ্চিত হওয়া যায়নি। আর গত ১০ বছরে খুন হওয়া সাংবাদিকদের ৮১ শতাংশই বিচার পাননি।

সিপিজের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, সাংবাদিক খুনের বিচার না হওয়ার তালিকায় আগের বছরের চেয়ে বাংলাদেশের এক ধাপ অগ্রগতির কারণ হচ্ছে লেখক ও ব্লগার অভিজিৎ রায় ও প্রকাশক ফয়সাল আরেফিন দীপন হত্যার বিচার। এ দুই হত্যাকাণ্ডের দায়ে নিষিদ্ধঘোষিত জঙ্গি সংগঠন আনসার আল ইসলামের কয়েকজন সদস্যকে মৃত্যুদণ্ড দেওয়া হয়েছে। যদিও তারা মৃত্যুদণ্ডকে সমর্থন করে না। আসামিদের মানবিক সাজা দেওয়ার জন্য বাংলাদেশের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে সিপিজে।

বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন