সীমান্ত ব্যাংক নামে নতুন ব্যাংক পাচ্ছে বিজিবি

বিজ্ঞাপন

সেনাবাহিনীর ব্যবস্থাপনায় পরিচালিত ট্রাস্ট ব্যাংকের আদলে নতুন একটি বাণিজ্যিক ব্যাংক স্থাপন করবে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি)। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এ ব্যাপারে নীতিগত অনুমোদন দিয়েছেন। নতুন এই ব্যাংকটির নাম হচ্ছে ‘সীমান্ত ব্যাংক’।
বিজিবির মহাপরিচালক মেজর জেনারেল আজিজ আহমেদ প্রথম আলোকে বলেন, ব্যাংক স্থাপনের ব্যাপারে অর্থ মন্ত্রণালয় ও বাংলাদেশ ব্যাংকের সঙ্গে আলোচনা হয়েছে। রাইফেলস কল্যাণ সংস্থা ব্যাংকটি পরিচালনা করবে। বিজিবির মহাপরিচালক পদাধিকারবলে এর প্রধান হবেন।
বিজিবি সূত্র জানায়, নতুন এই ব্যাংক স্থাপনের ব্যাপারে যাবতীয় কর্মকাণ্ড প্রায় শেষ করে ফেলেছে বিজিবি। এতে অনুমোদিত মূলধন ধরা হয়েছে ৪০০ কোটি টাকা। আর পরিশোধিত মূলধন থাকবে ১০০ কোটি টাকা। আগামী ছয় মাসের মধ্যে ব্যাংকের কার্যক্রম শুরু হতে পারে বলে বিজিবির কর্মকর্তারা আশা করছেন।
বিজিবির মহাপরিচালক জানান, ঝিগাতলা সীমান্ত স্কয়ারের কাছে যে নতুন ভবন হচ্ছে, সেখানেই এই ব্যাংকের প্রধান কার্যালয় হবে। ব্যাংকে চাকরির ক্ষেত্রে বিজিবির কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের পরিবারের সদস্যরা সুবিধা পাবেন। তাঁদের কোটাও থাকবে। একইভাবে ঋণের ক্ষেত্রেও তাঁরা বিশেষ সুবিধা পাবেন। তিনি জানান, সীমান্ত ব্যাংকের পরিচালক কারা হবেন সেটা এখনো নির্ধারিত হয়নি। তবে ব্যাংক চালাতে অভিজ্ঞতা আছে এমন লোকদেরই রাখা হবে। বিজিবির কর্মকর্তারাও পরিচালক হিসেবে থাকতে পারেন। তবে সবকিছু হবে ট্রাস্ট ব্যাংককে অনুসরণ করে। ট্রাস্ট ব্যাংক যেভাবে পরিচালিত হচ্ছে, সেভাবেই সীমান্ত ব্যাংক পরিচালিত হবে। অর্থমন্ত্রীর সঙ্গে এ নিয়ে বৈঠক হয়েছে বলেও তিনি জানান।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0
বিজ্ঞাপন