সোনা চোরাচালান মামলায় এক নারী তিন দিন রিমান্ডে

বিজ্ঞাপন
default-image

সোনা চোরাচালান মামলায় এক নারীকে তিন দিন রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করার অনুমতি দিয়েছেন আদালত। পুলিশের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে ঢাকার মুখ্য মহানগর হাকিম (সিএমএম) আদালত আজ শনিবার এই আদেশ দেন।

আসামির নাম নিলুফা ইয়াছমিন (৩৯)। তাঁর গ্রামের বাড়ি নারায়ণগঞ্জে।

পুলিশ জানায়, শুক্রবার দিবাগত রাত একটার সময় ১ কেজি ৩৭০ গ্রাম সোনাসহ তাঁকে হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে গ্রেপ্তার করে ঢাকার কাস্টমস কর্তৃপক্ষ। এ ঘটনায় কাস্টম হাউসের সহকারী রাজস্ব কর্মকর্তা ইরফান ইয়াসনা বাদী হয়ে বিশেষ ক্ষমতা আইনে ওই নারীর বিরুদ্ধে বিমানবন্দর থানায় মামলা করেন। নিলুফা ইয়াছমিনকে ঢাকার সিএমএম আদালতে হাজির করে ১০ দিন রিমান্ডে নেওয়ার আবেদন করে বিমানবন্দর থানার পুলিশ। শুনানি নিয়ে আদালত তাঁকে তিন দিন রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করার অনুমতি দেন।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা বিমানবন্দর থানার উপপরিদর্শক (এসআই) শেখ তাজউদ্দিন আহম্মেদ প্রথম আলোকে বলেন, নিলুফা ইয়াছমিনকে জিজ্ঞাসাবাদ করার জন্য থানায় নেওয়া হয়েছে। জিজ্ঞাসাবাদ শেষে ঘটনার পুরো রহস্য জানা সম্ভব হবে।

মামলার কাগজপত্রের তথ্য বলছে, গতকাল শুক্রবার রাতে ব্যাংকক থেকে উড়োজাহাজে করে হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে নামেন নিলুফা ইয়াছমিন। ঘোষণা দেওয়া ছাড়া গ্রিন চ্যানেল অতিক্রম করার সময় কাস্টমস কর্তৃপক্ষের লোকজন তাঁর কাছে জিজ্ঞাসা করেন, কোনো স্বর্ণ আছে কি না। জবাবে ওই নারী বলেন, তাঁর কাছে কোনো স্বর্ণ নেই। পরে কাস্টমসের নারী কর্মকর্তারা নিলুফার দেহে আর্চওয়ে করান। পরে তাঁর দেহে ধাতব পদার্থ থাকার সংকেত পাওয়া যায়। কাস্টমসের নারী কর্মকর্তারা তাঁর দেহ থেকে ১ কেজি ৩৭০ গ্রাম সোনা জব্দ করেন।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা শেখ তাজউদ্দিন আহমেদ আদালতকে এক প্রতিবেদন দিয়ে বলেন, নিলুফা ইয়াছমিনকে প্রাথমিকভাবে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। জিজ্ঞাসাবাদে তিনি একেক সময় একেক ধরনের তথ্য দিচ্ছেন। মূল আসামিকে গোপন করার জন্য এমন পাঁয়তারা করছেন নিলুফা ইয়াছমিন।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0
বিজ্ঞাপন