৫৩ শতাংশ দুর্ঘটনাই গাড়িচাপার

দুর্ঘটনার তথ্য পর্যালোচনা করে সংগঠনটি বলছে, গত বছর যত সড়ক দুর্ঘটনা হয়েছে, এর মধ্যে ৫২ দশমিক ৯৬ শতাংশ গাড়িচাপা দেওয়ার ঘটনা। এ ছাড়া ২২ শতাংশ মুখোমুখি সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। ১৭ শতাংশ যানবাহন খাদে পড়ে দুর্ঘটনাকবলিত।
দুর্ঘটনার ধরন সম্পর্কে বাংলাদেশ যাত্রী কল্যাণ সমিতি বলছে, দেশে সড়ক দুর্ঘটনার প্রায় ২৯ শতাংশ জাতীয় মহাসড়কে, ৪৪ দশমিক ৬৯ শতাংশ আঞ্চলিক মহাসড়কে সংগঠিত হয়েছে।

দুর্ঘটনার বড় কারণ বেপরোয়া গতি

দুর্ঘটনার কারণ সম্পর্কে বলা হয়, দেশে সড়ক দুর্ঘটনার বড় কারণ বেপরোয়া গতি। গাড়ি চালানোর সময় চালকেরা মুঠোফোনে কথা বলেছেন। অনেক চালক মাদক সেবন করে গাড়ি চালান।

সড়ক দুর্ঘটনা রোধে সড়ক পরিবহন আইন কঠোরভাবে প্রয়োগের আহ্বান জানান সংগঠনের মহাসচিব মোজাম্মেল হক চৌধুরী। তিনি বলেন, মহাসড়কের উভয় পাশে ১০ মিটার খালি রাখার বিধান বাস্তবায়ন করতে হবে।

এর আগে ২০২০ সালের সড়ক দুর্ঘটনা নিয়ে ৬ জানুয়ারি প্রতিবেদন প্রকাশ করেন নিরাপদ সড়ক চাইয়ের (নিসচা) চেয়ারম্যান ইলিয়াস কাঞ্চন। সংগঠনটির প্রতিবেদনের তথ্য বলছে, গেল বছর সড়ক, রেল ও নৌপথে সড়ক দুর্ঘটনা সংঘটিত হয়েছে ৪ হাজার ৯২টি। মারা গেছেন ৪ হাজার ৯৬৯ জন এবং আহত হন ৫ হাজার ৮৫ জন।


এ ছাড়া রোড সেফটি ফাউন্ডেশনের প্রকাশিত বার্ষিক প্রতিবেদন বলছে, ২০২০ সালে মোট সড়ক দুর্ঘটনা ঘটেছে ৪ হাজার ৭৩৫টি। এতে মারা গেছেন ৫ হাজার ৪৩১ জন। মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় প্রাণহানি বেড়েছে ৫০ শতাংশের বেশি।