বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

কুমিল্লায় পূজামণ্ডপে পবিত্র কোরআন শরিফ রাখার ঘটনার জেরে গত ১৩ অক্টোবর সন্ধ্যায় হাজীগঞ্জ বাজারে বিক্ষোভ মিছিল বের হয়। এ সময় মিছিল থেকে হাজীগঞ্জ পৌর এলাকার কয়েকটি মন্দিরে হামলা ও ভাঙচুরের ঘটনা ঘটে। সেই ঘটনায় বিচার বিভাগীয় তদন্ত চেয়ে অনুপ কুমার সাহা নামের এক ব্যক্তি ২৮ অক্টোবর হাইকোর্টে রিট পিটিশন করেন। সেই রিট পিটিশনের পরিপ্রেক্ষিতে বিচারপতি মো. মজিবুর রহমান মিয়া ও বিচারপতি মো. কামরুল হোসেন মোল্লা ঘটনাটির বিচার বিভাগীয় তদন্তের নির্দেশ দেন।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, হাজীগঞ্জে মন্দিরে হামলা ও ভাঙচুরের ঘটনায় পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষে ঘটনাস্থলে তিনজন, হাজীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়ার পর একজন এবং ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আরও একজনসহ মোট পাঁচজনের মৃত্যু হয়।

এ ঘটনায় হাজীগঞ্জ থানায় পুলিশ বাদী হয়ে দুটি এবং ক্ষতিগ্রস্ত মন্দির কর্তৃপক্ষ বাদী হয়ে আটটি মামলা করেছে। হাজীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ইব্রাহীম খলিল বলেন, মোট ১০টি মামলায় প্রায় ৫ হাজার লোককে আসামি করা হয়েছে। আজ বুধবার পর্যন্ত আটক হয়েছে ১০২ জন।

বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন