বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

ট্রাইব্যুনালের বেঞ্চ সহকারী কফিল উদ্দিন প্রথম আলোকে বলেন, রায় ঘোষণার সময় আদালতে হাজির ছিলেন আসামি দীপালি দাস। পরে তাঁকে কারাগারে পাঠিয়ে দেন আদালত। মামলার আরেক আসামি উজ্জ্বল দাসকে বেকসুর খালাস দেন আদালত।

আদালত সূত্র জানায়, ২০০৭ সালের ৩ জুলাই নগরের বাকলিয়া ডিসি রোড এলাকায় রাত সাড়ে ১১টার দিকে তিন মাস বয়সী একটি ছেলে ও দেড় মাস বয়সী একটি কন্যাশিশুকে বিক্রির জন্য নিয়ে আসেন দীপালি দাস। খবর পেয়ে পুলিশ সেখানে উপস্থিত হয়। এ ঘটনায় বাকলিয়া থানা–পুলিশ বাদী হয়ে মামলা করে। তদন্ত শেষে পুলিশ দীপালি ও তাঁর সহযোগী উজ্জ্বলের বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র দেয়।

এতে বলা হয়, চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের একটি ওয়ার্ড থেকে শিশু দুটিকে চুরি করেন অস্থায়ী আয়া দীপালি দাস। পরে বিক্রির জন্য বাকলিয়া এলাকায় নিয়ে যান। তিনজন সাক্ষীর সাক্ষ্য গ্রহণ শেষে আদালত এ রায় দেন।

বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন