বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
default-image

রেকর্ডটা গড়তে পেরে উচ্ছ্বসিত সাইক্লিস্ট দ্রাবিড় আলম। বললেন, ‘প্রায় দুই বছরের প্রস্তুতি শেষে আমরা রেকর্ডটা পেলাম। মনে হচ্ছে অনেক দিন পরে কাঁধ থেকে একটা ভার নেমে গেল। এবার সময় আরও বড় কিছু করার।’ রাকিবুল ইসলামের কথায়, ‘আমরা চারজন এখানে শুধু সাইকেল চালিয়েছি। রেকর্ডটা আসলে সফল করেছে আমাদের সাথে যে ১৫০ জনের বেশি ভলান্টিয়ার (স্বেচ্ছাসেবক) হিসেবে সেখানে ছিলেন, তাঁরা সবাই মিলে।’

প্রায় এক মাস পর মিলল বিশ্ব রেকর্ডের স্বীকৃতি। দেরির কারণ জানতে চাইলে দ্রাবিড় বললেন, রেকর্ডের বিভিন্ন রকম তথ্যপ্রমাণ নিয়ে গিনেস কর্তৃপক্ষের সঙ্গে যোগাযোগ চলছিল। ৪৮ ঘণ্টার ছয়টি ক্যামেরার ভিডিও ফুটেজ, ১৩ জন সাক্ষীর দেওয়া প্রমাণপত্র, সার্ভেয়ারের দেওয়া প্রতিবেদন, অজস্র ছবি, জিপিএসে রাইডের ডেটা এবং আরও অনেক কিছু গিনেস কর্তৃপক্ষের কাছে পাঠাতে হয়েছিল। সেসব যাচাই-বাছাই শেষে গতকাল শুক্রবার গিনেস কর্তৃপক্ষ তাদের সিদ্ধান্ত জানায়। কিন্তু টিমবিডিসির পক্ষ থেকে আজ শনিবার জানানো হলো।

এর আগে ২০১৬ সালের বিজয় দিবসে ১ হাজার ১৮৬ জন মানুষ ধীরগতিতে সাইকেল চালিয়ে বিশ্ব রেকর্ড গড়েছিলেন। চলন্ত সাইকেলে দীর্ঘতম একক সারির রেকর্ডটি দীর্ঘদিন বিডিসাইক্লিস্টসের ঘরেই ছিল। এবার নতুন রেকর্ড গড়লেন বিডিসিরই চার তরুণ—দ্রাবিড়, তানভীর, রাকিবুল ও আলাউদ্দিন।
বিশ্ব রেকর্ডের জন্য টিমবিডিসি পূর্বাচলে জয়নুল আবেদিন চত্বরটি বেছে নিয়েছিল। ১ দশমিক ৭ কিলোমিটার রাস্তায় প্রায় ১ হাজার ৩ চক্কর দিয়েছেন এই চার সাইক্লিস্ট। টিমবিডিসির সদস্যরা এ কাজে সহায়তা পেয়েছেন তাঁদের পৃষ্ঠপোষক ডাবরের কাছ থেকে। আর সহযোগিতায় ছিল প্রথম আলো ডটকম।

গিনেসের ওয়েবসাইটে রেকর্ডটি সম্পর্কে জানতে ক্লিক করুন:

বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন