হাইকমিশনার পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের শুভেচ্ছা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে পৌঁছে দেন। শেখ হাসিনাও হাইকমিশনারের মাধ্যমে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানকে শুভেচ্ছা জানান। পাকিস্তানের হাইকমিশনার বলেন, বাংলাদেশের বিস্ময়কর উন্নয়ন সম্পর্কে জানতে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী তাঁদের পরামর্শ দিয়েছেন। বিভিন্ন দ্বিপক্ষীয় ও আঞ্চলিক ফোরামগুলোর নিষ্ক্রিয়তার কথা উল্লেখ করে পাকিস্তানের হাইকমিশনার দুই দেশের মধ্যে ফরেন অফিস কনসুলেশন সক্রিয় করতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সহযোগিতা চান।
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, নিয়মিত কাজ চালিয়ে যাওয়ার ক্ষেত্রে এখানে কোনো বাধা নেই।
হাইকমিশনার ইমরান আহমেদ বলেন, পাকিস্তান বাংলাদেশের সঙ্গে কোনো রকম প্রতিবন্ধকতা ছাড়া দ্বিপক্ষীয় সম্পর্ক জোরদার করতে চায়।
বাংলাদেশের পররাষ্ট্রনীতি ‘সকলের সঙ্গে বন্ধুত্ব কারো সঙ্গে বৈরিতা নয়’ উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, তিনি আঞ্চলিক সহযোগিতায় বিশ্বাস করেন।
বিশ্ব অঙ্গনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বের প্রশংসা করেন পাকিস্তানি হাইকমিশনার।
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পাকিস্তানের হাইকমিশনারকে স্বাগত জানিয়ে দায়িত্ব পালনকালে সব ধরনের সহযোগিতার আশ্বাস দেন। এ সময় প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব আহমদ কায়কাউস এবং প্রধানমন্ত্রীর সামরিক সচিব মেজর জেনারেল নকিব আহমদ চৌধুরী উপস্থিত ছিলেন।

সুইডেন ও স্পেনের বিনিয়োগকারীদের প্রতি বিনিয়োগের আহ্বান

সুইডিশ বিনিয়োগকারীদের প্রতি বিনিয়োগের আহ্বান জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, এখানে ব্যবসা করার অনেক সুযোগ তৈরি হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আমরা ১০০টি বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চল স্থাপন করছি। আমরা সেখানে অনুকূল পরিবেশ ও সুযোগ সৃষ্টি করেছি। কাজেই সুইডেন এখানে বিনিয়োগ করতে পারে।’ সুইডেনের রাষ্ট্রদূত আলেকজান্দ্রা বার্গ ভন লিনডে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে গতকাল গণভবনে সৌজন্য সাক্ষাৎকালে প্রধানমন্ত্রী এই আহ্বান জানান।
একই দিনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে গণভবনে সাক্ষাৎ করেন স্পেনের রাষ্ট্রদূত ফ্যান্সিসকো ডি এসিস বেনিতেজ। এ সময় প্রধানমন্ত্রী স্পেনের বিনিয়োগকারীদের বাংলাদেশের বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চল (এসইজেড) এবং হাইটেক পার্কগুলোতে তৈরি পোশাক, পাট, চামড়া ও ওষুধশিল্পে আরও বড় আকারের বিনিয়োগের জন্য এগিয়ে আসার আহ্বান জানিয়েছেন।