মাহমুদুন্নবী বদরগঞ্জ পৌরসভার বাসিন্দা। তাঁর স্ত্রী মোসা. কামরুন্নাহার প্রথম আলোকে বলেন, গত ২৯ জুন তাঁর স্বামীর ব্লাড ক্যানসার (লিউকেমিয়া) ধরা পড়ে। দেশে চিকিৎসা শেষে শুভাকাঙ্ক্ষীদের আর্থিক সহযোগিতায় অস্থিমজ্জা প্রতিস্থাপনের জন্য তাঁকে আগস্টে ভারতে নেওয়া হয়। কিন্তু সেখানে তাঁর মস্তিষ্কে রক্তক্ষরণ (স্ট্রোক) হয়। রক্তক্ষরণের চিকিৎসা করতে গিয়ে ক্যানসারের চিকিৎসার জন্য সংগৃহীত অর্থ শেষ হয়ে যায়। পরে দেশে ফিরিয়ে এনে এখানকার হাসপাতালে তাঁকে ভর্তি করেন।

মাহমুদুন্নবীর এক পরিচিতজন প্রথম আলোকে বলেন, মাহমুদুন্নবীর উদ্যোক্তা হওয়ার স্বপ্ন ছিল। সে অনুযায়ী লেখাপড়া শেষে তিনি রংপুরে একটি আইটি ফার্ম চালু করেন। কিন্তু স্বপ্নযাত্রার শুরুতেই তাঁর শরীরে ক্যানসার ধরা পড়ে। শয্যাশায়ী মাহমুদের শরীর শুকিয়ে গেছে। তাঁকে নিকটতম বন্ধুদেরও চিনতে কষ্ট হয়।

মাহমুদুন্নবীর চিকিৎসা চালিয়ে যাওয়ার মতো সামর্থ্য এখন তাঁর পরিবারের নেই। তাই তাঁর চিকিৎসায় সহায়তার হাত বাড়িয়ে দিতে হৃদয়বান মানুষের প্রতি অনুরোধ জানিয়েছে পরিবারটি।

সহায়তা পাঠানোর ঠিকানা: মোসা. কামরুন্নাহার, ২০৫.০১১.৭০২.০৪১.৯৬৮০৬, ইসলামী ব্যাংক, রংপুর শাখা। বিকাশ (ব্যক্তিগত) ০১৭৩৭–১৭৬২৭৫।