ভারতীয় সংবাদমাধ্যম হিন্দুস্তান টাইমসের একটি প্রতিবেদনের উদ্ধৃতি দিয়ে রুমিন ফারহানা বলেন, রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্রের মতো একই ধরনের একটি বিদ্যুৎকেন্দ্র ভারতে নির্মাণ করা হচ্ছে। বাংলাদেশে ভারতের চেয়ে চার গুণ বেশি খরচ হচ্ছে। কেন এত বেশি খরচ হচ্ছে এবং সরকার কেন স্পট মার্কেট থেকে জ্বালানি তেল কিনছে, তা তিনি বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রীর কাছে জানতে চান।

জবাব দিতে গিয়ে কিছুটা ব্যঙ্গাত্মক সুরে নসরুল হামিদ বলেন, ‘আমি তাঁকে (রুমিন) যতটুকু স্মার্ট আশা করেছিলাম, তিনি ততটুকু আধুনিক না। তাঁর তথ্য জানার জন্য যে ধরনের উপাত্ত থাকা দরকার, সেটাও নেই। কারণ, তিনি বুঝতে পারছেন না, পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্র আমার মন্ত্রণালয়ের অধীনে নয়। প্রশ্নটা করা উচিত ছিল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের কাছে।’

স্পিকারের উদ্দেশে নসরুল হামিদ বলেন, ‘আপনি বুঝতে পারছেন, সংসদ সদস্যরা কী পরিমাণ তথ্য-উপাত্ত নিয়ে প্রশ্ন করেন। সংসদ সদস্যকে অনুরোধ করব, তিনি সঠিক তথ্য জেনে আসেন, কোন মন্ত্রণালয়ের জন্য কী প্রশ্ন করবেন।’

জ্বালানি তেল দীর্ঘমেয়াদি চুক্তিতে না কিনে স্পট মার্কেট থেকে কেনার বিষয়ে প্রতিমন্ত্রী বলেন, কয়েক বছর আগে সরকার যখন দীর্ঘমেয়াদি চুক্তি করেছিল, তখন সবাই মিলে এর সমালোচনা করেছেন। স্পট মার্কেট থেকে পাঁচ ডলারে না কিনে সরকার কেন দীর্ঘ মেয়াদে যাচ্ছে, তা নিয়ে সমালোচনা হয়েছে। এখন আবার উল্টো সমালোচনা করছেন।