ঢাকা শহরের বিভিন্ন অঞ্চলে এ বছর প্রাক্–বর্ষা মৌসুম মশা জরিপে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের রোগনিয়ন্ত্রণ শাখা দেখেছিল, ডেঙ্গুর বাহক এডিস মশার পরিমাণ গত বছরের একই সময়ের চেয়ে কিছু বেশি। ওই জরিপের ফলাফল প্রকাশের পর জনস্বাস্থ্যবিদ ও কীটতত্ত্ববিদদের একটি অংশ বলেছিল, এ বছর ডেঙ্গুর প্রকোপ গত বছরের চেয়ে বেশি হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে।

এ বছর জানুয়ারি থেকে জুন পর্যন্ত পাঁচ মাসে হাসপাতালে ভর্তি হওয়া ডেঙ্গু রোগীর সংখ্যা ছিল ১ হাজার ৮৯। অন্যদিকে জুলাই মাসের প্রথম ১৬ দিনে রোগী ভর্তি হয়েছেন ৫৮১ জন। অর্থাৎ দেশে ডেঙ্গু আক্রান্তের সংখ্যা কিছুটা ঊর্ধ্বমুখী।

এ বছর আজ পর্যন্ত সারা দেশে হাসপাতালে ভর্তি হওয়া ডেঙ্গু রোগীর সংখ্যা ১ হাজার ৬৭০ জন। এর মধ্যে ঢাকায় ১ হাজার ৪৫৬ জন এবং ঢাকার বাইরে ২১৪ জন হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। এর মধ্যে রাজধানীর গ্রিন রোডের একটি হাসপাতালে এক রোগীর মৃত্যু হয়েছে।

আজ সারা দেশের বিভিন্ন হাসপাতালে ২২০ জন রোগী চিকিৎসাধীন। রাজধানীর ৪৭টি হাসপাতালে ভর্তি আছেন ১৭৬ জন। অন্যদিকে ঢাকার বাইরে চিকিৎসাধীন ৪৪ জন। সবচেয়ে বেশি রোগী ভর্তি আছেন রাজধানীর মুগদা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে। এ হাসপাতালে ৩৮ জন রোগী ভর্তি আছেন।

ঢাকার বাইরে সবচেয়ে বেশি রোগী কক্সবাজার জেলায়। এ জেলায় ৩৩ জন রোগী চিকিৎসাধীন। সাতক্ষীরা, নড়াইল, পটুয়াখালী ও পিরোজপুরে একজন করে রোগী ভর্তি আছেন। মুন্সিগঞ্জ ও ভোলা জেলায় রোগী ভর্তি আছেন দুজন করে। আর তিনজন রোগী ভর্তি আছেন ময়মনসিংহ জেলায়।

বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন