শামসুল আলম সুনীল অর্থনীতির টেকসই উন্নয়ন ও যথাযথ ব্যবহারের জন্য দুটি বিষয়ের ওপর গুরুত্বারোপ করেন। এর একটি হচ্ছে সম্পদের অনুসন্ধান এবং অন্যটি সম্পদের ব্যবহার। তিনি বলেন, সুনীল অর্থনীতির পরিপূর্ণ সুফল নিশ্চিত করার জন্য যদি পৃথক মন্ত্রণালয় গঠন করা না যায়, তবে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের অধীন একটি বিভাগ গঠন করা যেতে পারে।

সমুদ্রসম্পদ আহরণের জন্য সম্পদের অপ্রতুলতার কথা উল্লেখ করে পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী বলেন, এ জন্য ব্লু বন্ড বাজারে ছাড়ার একটি পরিকল্পনা ছিল।

আঞ্চলিক সহযোগিতার মাধ্যমে সুনীল অর্থনীতিকে এগিয়ে নেওয়ার ওপর গুরুত্বারোপ করে তিনি বলেন, বাংলাদেশে অনেক জাহাজ থাকতে হবে ও বন্দর উন্নত করতে হবে।

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মেরিটাইম অ্যাফেয়ার্স ইউনিটের সচিব রিয়ার অ্যাডমিরাল (অব.) মো. খুরশেদ আলম বলেন, চট্টগ্রাম বন্দরে বড় জাহাজ আসতে পারে না; কারণ, এর নাব্যতা ৯ দশমিক ৫ মিটার। অন্যদিকে মাতারবাড়ী গভীর সমুদ্রবন্দরের গভীরতা হচ্ছে ১৪ থেকে ১৮ মিটার। সেখানে মোটামুটি বড় জাহাজ ভিড়তে পারবে।

বিসের পরিচালনা পরিষদের চেয়ারম্যান কাজী ইমতিয়াজ হোসেনের সভাপতিত্বে সেমিনারে স্বাগত বক্তব্য দেন বিসের মহাপরিচালক মেজর জেনারেল মোহাম্মদ মাকসুদুর রহমান।

সেমিনারের কর্ম অধিবেশন সঞ্চালনা করেন সাবেক রাষ্ট্রদূত এবং বাংলাদেশ এন্টারপ্রাইজ ইনস্টিটিউটের সভাপতি এম হুমায়ুন কবীর। জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের অধ্যাপক আবুল কালাম আজাদ, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের অধ্যাপক দেলোয়ার হোসেন, বিসের গবেষণা ফেলো মৌটুসি ইসলাম এবং বিসের গবেষণা পরিচালক মাহফুজ কবির প্রবন্ধগুলো উপস্থাপন করেন।

বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন