জি এম কাদের
ফাইল ছবি

জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান ও জাতীয় সংসদে বিরোধী দলের উপনেতা জি এম কাদেরের মুঠোফোন ছিনতাইয়ের ঘটনার চার দিন পেরোলেও সেটি উদ্ধার করা সম্ভব হয়নি। গত বুধবার রাতে রাজধানীর বিমানবন্দর এলাকা থেকে তাঁর মুঠোফোন ছিনতাই হয়। পরদিন বৃহস্পতিবার বিমানবন্দর থানায় মামলা করা হয়।

ঢাকা মহানগর পুলিশের বিমানবন্দর জোনের সহকারী কমিশনার সাইফুল ইসলাম প্রথম আলোকে বলেন, ছিনতাইয়ের ঘটনায় একজন সন্দেহভাজনকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে। তবে মুঠোফোন উদ্ধারে তেমন কোনো অগ্রগতি হয়নি।
পুলিশ জানিয়েছে, বুধবার রাতে সংসদ ভবন থেকে উত্তরার বাসায় যাচ্ছিলেন জি এম কাদের। রাত ১১টার দিকে হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের নির্মাণাধীন তৃতীয় টার্মিনালের সামনে যানজটে আটকা পড়ে তাঁর গাড়ি। এ সময় গাড়ির জানালা খোলা ছিল। মুঠোফোনটি জি এম কাদেরের হাতেই ছিল। হঠাৎ একজন তাঁর মুঠোফোন ছিনিয়ে নিয়ে পালিয়ে যান।

জি এম কাদের শনিবার প্রথম আলোকে বলেন, তাঁর মুঠোফোন ছিনিয়ে নেওয়ার পর লোকজন ওই ছিনতাইকারীকে ধাওয়া দেন। এ সময় একটি মুঠোফোন ছুড়ে ফেলে পালিয়ে যান ওই ছিনতাইকারী। তবে ছিনতাইকারীর ফেলে যাওয়া সেই মুঠোফোনটি তাঁর ছিল না।

আরও পড়ুন

যানজটে আটকে ছিলেন জি এম কাদের, ছিনতাইকারী ছিনিয়ে নিল মুঠোফোন

এর আগে গত বছরের ২৫ মে রাজধানীর বিজয় সরণিতে পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নানের মুঠোফোন ছিনতাই হয়। ছিনতাইয়ের সময় পরিকল্পনামন্ত্রীর গাড়ির জানালা খোলা ছিল। ঘটনার দেড় মাস পর একটি ছিনতাইকারী চক্রের কাছ থেকে মুঠোফোনটি উদ্ধার করে পুলিশ।